kalerkantho

বুধবার । ১৬ অক্টোবর ২০১৯। ১ কাতির্ক ১৪২৬। ১৬ সফর ১৪৪১       

জমি দখল করে বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস

ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে হয়রানির অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী   

৪ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রাজশাহী নগরীর খড়খড়ি এলাকায় আয়নাল হক নামের এক ব্যক্তির জমি দখল করে নিজস্ব ক্যাম্পাস নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে। এতে বাধা দেওয়ায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারটিকে পুলিশ দিয়ে হয়রানি করারও অভিযোগ উঠেছে।

এর প্রতিবাদে তারা গত শনিবার দখল হয়ে যাওয়া ওই জমিতে গিয়ে অবস্থান নেয়। পরে স্থানীয়রা দ্রুত বিষয়টির সমাধান করে দেওয়ার আশ্বাস দিলে তারা সেখান থেকে চলে যায়।

আয়নাল হকের স্ত্রী তোহুরা বেগম অভিযোগ করেন, তাঁর স্বামীর নামে থাকা প্রায় পাঁচ কাঠার জমি জোর করে দখলে নেওয়ার পর এখন নামমাত্র দামে কিনে নেওয়ার জন্য চাপ দিচ্ছে বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। এতে তাঁরা রাজি না হওয়ায় পুলিশ দিয়ে তাঁদের নানাভাবে হয়রানি করা হচ্ছে।

সর্বশেষ গত শুক্রবার রাতে নগরীর চন্দ্রিমা থানার এসআই শরিফুলের নেতৃত্বে একদল পুলিশ তাঁদের বাড়িতে গিয়ে ঘরে ঢুকে জিনিসপত্র তছনছ করে আসে। এ ছাড়া ওই বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ যে দামে জমিটি কিনতে চায় সে দামেই বিক্রি করতে চাপ দিয়ে আসে। এর প্রতিবাদে তিনি তাঁর তিন মেয়েকে নিয়ে শনিবার সকালে ওই জমিতে গিয়ে অবস্থান নেন। তাঁদের জমিসহ পাশের জমিতে নিজস্ব ভবন নির্মাণ করছে ওই বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

তোহুরার মেয়ে ঝর্ণা বলেন, ‘আমরা গরিব মানুষ। তাই আমাদের ডাকে পুলিশ আসে না। আমরা থানায় জমি দখলের অভিযোগ দিয়ে এসেছি। কিন্তু পুলিশ কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। উল্টো আমাদেরই জমি কম দামে বিক্রি করতে চাপ দিচ্ছে।’

জানতে চাইলে চন্দ্রিমা থানার ওসি হুমায়ুন কবির বলেন, ‘জমি দখলের অভিযোগ পেয়েছি। কিন্তু পুলিশ ওই পরিবারটিকে হয়রানি করছে—এটা ঠিক নয়। পুলিশ হয়তো কোনো কাজে যেত পারে। কিন্তু তাঁদের হয়রানি করা হয়নি।’

এদিকে বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব ক্যাম্পাস নির্মাণকাজের প্রকল্প পরিচালক এ কে এম এবাদত হোসেন বলেন, ‘একটি জমি এখনো আমরা কিনতে পারিনি। এ নিয়ে একটু ঝামেলা আছে। তবে কাউকে হুমকি দেওয়ার অভিযোগ ঠিক নয়। আমরা দ্রুত বিষয়টি মীমাংসা করে নেব আশা করি।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা