kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ নভেম্বর ২০১৯। ২৯ কার্তিক ১৪২৬। ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

অমানবিক

সখীপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি   

১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ১ মিনিটে



টাঙ্গাইলের সখীপুরের বড়চওনা গায়েন মোড় গ্রামের দিনমজুর শাহ আলম। তাঁর আয়ের একমাত্র উৎস ছিল একটি ঘোড়ার গাড়ি। এই গাড়ি চালিয়েই দুই সন্তানের লেখাপড়ার খরচ জোগাতেন তিনি। ওষুধ কিনতেন বৃদ্ধ মায়ের জন্য। গত শনিবার রাতে কে বা কারা গলায় ফাঁস লাগিয়ে সেই ঘোড়াটি মেরে ফেলেছে।

এদিকে প্রিয় ঘোড়া হারিয়ে দিশাহারা হয়ে পড়েছেন শাহ আলম।

জানা যায়, প্রতিদিনের মতো শনিবার ঘোড়াটিকে গোয়ালে রেখে ঘুমিয়ে পড়েন শাহ আলম। পরদিন রবিবার সকালে ওই ঘরে গিয়ে দেখেন ঘোড়াটি নেই। বাড়ির পাশে সামাজিক বনায়নে গাছের সঙ্গে গলায় রশি টাঙানো অবস্থায় ঘোড়াটিকে দেখে স্থানীয়রা শাহ আলমকে খবর দেয়। ঘটনাস্থলে গিয়ে প্রিয় ঘোড়াকে মৃত দেখতে পেয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন শাহ আলম। তিনি অভিযোগ করেন, ‘আমার সত্ভাইদের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল। তারাই আমার উপার্জনের একমাত্র মাধ্যম ঘোড়াটি মেরে ফেলেছে। আমি এ ঘটনায় জড়িতদের শাস্তি চাই। ঘোড়াটি মেরে ফেলায় আমি এখন দিশাহারা।’

সখীপুর থানার এসআই আইয়ুব আলী বলেন, ‘ঘটনাটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা