kalerkantho

রবিবার। ১৭ নভেম্বর ২০১৯। ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণার পরও টনক নড়েনি ১৩
রংপুর স্বাস্থ্য বিভাগের ঝটিকা অভিযান

৫০ জনকে শোকজ

রংপুর অফিস   

১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্বাস্থ্য বিভাগের প্রত্যেক কর্মীকে যথাসময়ে কর্মস্থলে উপস্থিত থাকার নির্দেশ দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণার পর রংপুর স্বাস্থ্য বিভাগ বিভিন্ন হাসপাতালে ঝটিকা অভিযান চালায়। ফলে রংপুরে কর্মস্থলে চিকিৎসক, নার্স ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের যথাসময়ে উপস্থিতির হার বেড়েছে বলে জানা গেছে।

গত এক সপ্তাহে অনুপস্থিত থাকার কারণে কমপক্ষে ৫০ জনকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে। গত মঙ্গলবার সকাল ৮টার দিকে সিভিল সার্জনের নেতৃত্বে একটি টিম কাউনিয়া স্বাস্ব্য কমপ্লেক্স পরিদর্শনে যায়। সেখানে গিয়ে তারা একজন চিকিৎসক, একজন নার্স ও বাগানের দায়িত্বপ্রাপ্ত একজনকে অনুপস্থিত দেখতে পায়। কেন তাঁরা যথাসময়ে উপস্থিত হতে পারেননি এ জন্য তাঁদের কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়। এর আগে মিঠাপুকুরে ৫০ শয্যাবিশিষ্ট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৩৫ জন কর্মকর্তা-কর্মচারীর মধ্যে ৩০ জনই অনুপস্থিত ছিলেন। রংপুর বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. অমল চন্দ্র সাহা আকস্মিক পরিদর্শনে এসে তাঁদের অনুপস্থিত দেখতে পান। অনুপস্থিত ওই সব কর্মকর্তা ও কর্মচারীকে কারণ দর্শানোর নোটিশের পাশাপাশি তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে চিঠি পাঠানো হয়েছে।   

গত মঙ্গলবার সকালে রংপুর বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. অমল ঝটিকা অভিযানে কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যান। সেখানে ছয়জন চিকিৎসকের একজনকেও পাননি তিনি।

রংপুর বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. অমল বলেন, ‘আমরা প্রতিদিনই হাসপাতাল ও স্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলো পরিদর্শন করছি। গত এক সপ্তাহে তিনটি জেলা পরিদর্শন করেছি।’ আগের চেয়ে চিকিৎসক, নার্স, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের উপস্থিতি অনেক বেড়েছে বলে দাবি করেন তিনি।

সিভিল সার্জন ডা. আবু জাফর মোহাম্মদ জাকিরুল ইসলাম বলেন, ‘এ সরকার জনগণের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতের বিষয়টি গুরুত্বসহকারে দেখছে। তাই জনগণের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতে আমরা কাজ করছি। কর্মস্থলে কোনো প্রকার গাফিলতি বরদাশত করা হবে না।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা