kalerkantho

শনিবার । ১৬ নভেম্বর ২০১৯। ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

নাটোর-পাবনা

মহাসড়ক দাপিয়ে বেড়াচ্ছে অবৈধ যান

বড়াইগ্রাম (নাটোর) প্রতিনিধি   

২২ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মহাসড়ক দাপিয়ে বেড়াচ্ছে অবৈধ যান

অযান্ত্রিক যান মহাসড়কে নিষিদ্ধ। তার ওপর চলছে পুলিশের ট্রাফিক শৃঙ্খলা পক্ষ। সব কিছু উপেক্ষা করে দৌলতদিয়া-খুলনা মহাসড়কের গোয়ালন্দে বৃহস্পতিবার দেখা যায় ঘোড়ার গাড়ি। ছবি : গণেশ পাল

নাটোর-পাবনা মহাসড়ক দাপিয়ে বেড়াচ্ছে অবৈধ যানবাহন। ঘটাচ্ছে দুর্ঘটনা। কোনোভাবেই মহাসড়কে এ অনিয়ম থামানো যাচ্ছে না। 

জানা যায়, মহাসড়কে সিএনজি ও ব্যাটারি চালিত অটোরিকশা, লেগুনা, নছিমন, করিমন, ভটভটি, ট্রাক্টর চলাচলে সরকারি নিষেধাজ্ঞা আছে। কিন্তু মহাসড়কে দ্রুতগতির বাস-ট্রাকের পাশাপাশি ধীরগতির এসব যানবাহনও চলছে। ফলে যাত্রী ও পণ্য পরিবহনে যেমন বেশি সময় লাগছে, তেমনি ঘটছে দুর্ঘটনাও। এ ছাড়া ইটভাটার জন্য অবৈধ ট্রাক্টরে করে মাটি পরিবহনের কারণে নষ্ট হচ্ছে মহাসড়ক। গত বছরের ২৬ আগস্ট নাটোর-পাবনা মহাসড়কের কদিমচিলান এলাকায় লেগুনার সঙ্গে বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে ১৫ জন নিহত হয়। এ ঘটনায় দায়িত্বে অবহেলার দায়ে বনপাড়া হাইওয়ে থানার ওসিকে স্ট্যান্ড রিলিজ করা হয়। তখন সাময়িকভাবে মহাসড়কে অবৈধ যান চলাচল বন্ধ ছিল। এ ঘটনার পর প্রায় এক মাস পর্যন্ত বনপাড়া হাইওয়ে থানায় কোনো ওসি ছিল না। পরে আলীম হোসেন সিকদার ওসির দায়িত্ব নেন। কিন্তু আবারও সেই একই চিত্র। ওই মহাসড়কে চলতে শুরু করেছে অবৈধ যান।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সিএনজি ও ব্যাটারি চালিত অটোরিকশার দুই চালক জানান, নিয়মিত মাসোয়ারা দিলে মহাসড়কে গাড়ি চালাতে কোনো সমস্যা নেই। আর টাকা দিতে দেরি করলে, অপারগতা জানালে বা অপরিচিত গাড়ি পেলেই মামলা দেওয়া হয়।

এক রিকশাভ্যানচালক অভিযোগ করেন, “আমার ভ্যানগাড়ি বনপাড়া বাজার থেকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। পরে আমি থানায় গিয়ে বলি, ভ্যান বন্ধ থাকলে আমার সংসারে খাবার জুটবে না, ঋণের কিস্তি দিতে পারব না। এ সময় এক পুলিশ বলেন, ‘ভ্যান নিতে হলে ১০ হাজার টাকা দিতে হবে, না হলে মামলা দেব। এক মাস পরে ভ্যান নিয়ে যেয়ো।’ টাকা দিতে না পারায় মামলা দেওয়া হয়েছে। আমাদের বলা হয়েছিল বনপাড়া পৌর এলাকায় ভ্যান চালানো যাবে।”

বনপাড়া হাইওয়ে থানার ওসি আলীম হোসেন জানান, মহাসড়কে অবৈধ যানবাহনের বিরুদ্ধে অভিযান চলছে। তবে কারো কাছ থেকে মাসোয়ারা নিয়ে গাড়ি চালানোর অনুমতি দেওয়ার অভিযোগ অস্বীকার করেন তিনি।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা