kalerkantho

সোমবার । ১৮ নভেম্বর ২০১৯। ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

গোয়ালন্দে জোড়াতালি দিয়ে চলছে পরিসংখ্যান অফিস

গণেশ পাল, গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী)   

১৫ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গোয়ালন্দ উপজেলা পরিসংখ্যান কর্মকর্তার কার্যালয়ে মোট পাঁচটি পদ রয়েছে। এর মধ্যে উপজেলা পরিসংখ্যান কর্মকর্তা একজন, জুনিয়র পরিসংখ্যান সহকারী দুজন, কম্পিউটার অপারেটর একজন ও চেইনম্যান একজন।

গত দুই বছর ধরে সেখানে পরিসংখ্যান কর্মকর্তার পদটি শূন্য হয়ে আছে। তবে গত বছরের মে মাসে গোয়ালন্দ উপজেলা পরিসংখ্যান কর্মকর্তা পদে যোগদান করেছিলেন চিত্তরঞ্জন দাস। যোগদানের তিন মাসের মধ্যে মাত্র সাত দিন অফিস করেন তিনি। পরে গোয়ালন্দ উপজেলা থেকে বদলি হয়ে ঢাকার পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের প্রধান কার্যালয়ে চলে যান তিনি। এদিকে গোয়ালন্দ উপজেলা পরিসংখ্যান অফিসে কর্মকর্তাসহ পাঁচটি পদের মধ্যে চারটি পদ দীর্ঘদিন ধরে শূন্য হয়ে আছে। তাই কম্পিউটার অপারেটর পদে থাকা আজাদ শেখ একাই জোড়াতালি দিয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন দাপ্তরিক কাজ চালিয়ে আসছেন।

রবিবার সকাল ১১টায় রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলা কমপ্লেক্স এলাকায় সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে শুরু করে সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের কার্যালয় খোলা। কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ পরিসংখ্যান কর্মকর্তার কার্যালয়সহ পাশের ওই দপ্তরের কম্পিউটার অপারেটরের অফিস কক্ষ তালাবদ্ধ হয়ে আছে।

এ ব্যাপারে গোয়ালন্দ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এ বি এম নুরুল ইসলাম বলেন, ‘কর্মকর্তাসহ পাঁচটি পদের মধ্যে চারটি পদ শূন্য থাকায় উপজেলার পরিসংখ্যান কার্যালয়ের সব কর্মকাণ্ড স্থবির হয়ে আছে।’

গোয়ালন্দ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুবায়েত হায়াত শিপলু ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘জেলা সমন্ব্বয় কমিটির মিটিংয়ে গুরুত্বের সঙ্গে তুলে ধরে বিষয়টি আমি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেছি।’

 

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা