kalerkantho

শনিবার । ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৩০  মে ২০২০। ৬ শাওয়াল ১৪৪১

শীতবস্ত্রের অভাবে কষ্ট পাচ্ছে গোয়ালন্দের চরাঞ্চলের মানুষ

গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি   

৪ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে শীতের তীব্রতা দিন দিন বাড়ছে। এ উপজেলায় শীতবস্ত্রের অভাবে হতদরিদ্র পরিবারের কয়েক হাজার মানুষ কষ্ট পাচ্ছে। এর মধ্যে উপজেলার বিভিন্ন চরাঞ্চলের বাসিন্দারা সবচেয়ে বেশি দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। আর্থিক অনটনের কারণে শীতবস্ত্র কিনতে না পেরে অনেকেই খরকুটো জ্বালিয়ে শীত নিবারণ করছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সারা দেশের মতো পদ্মাপারের গোয়ালন্দে শীতের তীব্রতা দিন দিন বাড়ছে। প্রতিবছর শীতের শুরু থেকে এলাকায় শীতার্তদের মাঝে সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে কম্বলসহ বিভিন্ন শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়। কিন্তু এবার তা লক্ষ করা যাচ্ছে না। উপজেলার বেতকা, রাখালগাছি, দেবগ্রাম, চরকর্ণেশোনা গ্রামসহ প্রত্যন্ত চরাঞ্চলের হতদরিদ্র অনেক পরিবারের শিশু-বৃদ্ধসহ কয়েক হাজার মানুষ শীতে কষ্ট পাচ্ছে।

দেবগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মো. আতর আলী সরদার বলেন, ‘আমার ইউনিয়নে নদীভাঙা অসহায় অনেক পরিবার আছে। একটি কম্বলের জন্য ওই পরিবারের অনেকে প্রতিদিন ইউপি কার্যালয়ে এসে ভিড় জমাচ্ছে। কিন্তু সরকারি বরাদ্দ না পাওয়ায় এখন পর্যন্ত আমি তাদের কাউকে একটি কম্বলও দিতে পারছি না। তাই শীতার্ত অসহায় মানুষরা শীতবস্ত্র না পেয়ে খালি হাতে বাড়ি ফিরে যাচ্ছে।’ জরুরি ভিত্তিতে প্রত্যন্ত চরাঞ্চলের হতদরিদ্র শীতার্ত পরিবারের মধ্যে কম্বলসহ বিভিন্ন শীতবস্ত্র বিতরণ করা খুব প্রয়োজন বলে জানান তিনি।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) আবু সাঈদ মণ্ডল বলেন, ‘উপজেলার শীতার্ত অসহায় পরিবারের মধ্যে বিতরণের জন্য মাত্র ৪৪০টি কম্বল বরাদ্দ পাওয়া গেছে। যা প্রয়োজনের তুলনায় অনেক কম।’ তবে বরাদ্দ পাওয়া ওই কম্বলগুলো বিতরণের প্রক্রিয়া চলছে বলে তিনি জানান।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা