kalerkantho

ইউএনও বন্ধ করলেন বাল্যবিয়ে

স্বরূপকাঠি (পিরোজপুর) ও তানোর (রাজশাহী) প্রতিনিধি   

২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ১ মিনিটে



পিরোজপুরের স্বরূপকাঠিতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেয়েছে এক স্কুলছাত্রী। রবিবার বিকেলে উপজেলার বলদিয়া ইউনিয়নের বিন্ন গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। জানা গেছে, ওই গ্রামের মো. মামুন মিয়ার মেয়েকে (অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী) একই গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য মঞ্জুর হোসেনের ছেলে শাওনের সঙ্গে বিয়ে দেওয়ার প্রস্তুতি চলছিল। এলাকাবাসী এ খবর ইউএনও আবু সাঈদকে জানালে তিনি উপজেলা মহিলাবিষয়ক কর্মকর্তা নুসরাত জাহান, এএসআই তাজুল ইসলাম, এএসআই শেখর, ও এএসআই শরীফুলকে ঘটনাস্থলে পাঠান। তাঁরা ঘটনাস্থলে যাওয়ার আগেই তাদের আগমনের খবর পেয়ে ছেলে পক্ষ পালিয়ে যায়। পরে মেয়ের ১৮ বছর পূর্ণ না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দেবে না মর্মে মেয়ের বাবা মামুনের কাছে থেকে মুচলেকা নেওয়া হয়। এদিকে রাজশাহীর তানোরে রোমানা খাতুন (১৪) নামের অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রীর বাল্যবিয়ে বন্ধ করেছেন তানোর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইউএনও। রোমানা উপজেলার কামারগাঁ ইউনিয়নের মিরাপুর দিঘীপাড়া গ্রামের আক্কাস আলীর মেয়ে। গতকাল সোমবার দুপুর ১২টার দিকে ইউএনও আক্কাস আলীর বাড়িতে উপস্থিত হয়ে বিয়েটি বন্ধ করে দেন।

মন্তব্য