kalerkantho

বুধবার । ২৯ বৈশাখ ১৪২৮। ১২ মে ২০২১। ২৯ রমজান ১৪৪২

স্বাধীনতা তুমি, অবিনাশী গান

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

২৭ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ১৭ মিনিটে



স্বাধীনতা তুমি, অবিনাশী গান

মানব ভাস্কর্য - মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে গতকাল (ঘড়ির কাঁটার দিকে) পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়া, মাগুরা, নারায়ণগঞ্জ, গোপালগঞ্জ ও নাটোরে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা এভাবেই মানব ভাস্কর্য তৈরি করে। ছবি : কালের কণ্ঠ

বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে দেশব্যাপী গতকাল সোমবার মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদ্যাপন করা হয়েছে। সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে ৩১ বার তোপধ্বনির মাধ্যমে স্মৃতিস্তম্ভগুলোতে ফুল দিয়ে বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হয়। এ ছাড়া বিভিন্ন সামাজিক, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের পক্ষ থেকে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, কুচকাওয়াজ, শারীরিক কসরত প্রদর্শনী ও দোয়া-মোনাজাতের আয়োজন করা হয়। সংবর্ধনা দেওয়া হয় মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ পরিবারের সদস্যদের। বিস্তারিত নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে :

লক্ষ্মীপুর : লক্ষ্মীপুর কালেক্টরেট ভবন প্রাঙ্গণে মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতিফলকে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী এ কে এম শাহজাহান কামাল। পর্যায়ক্রমে জেলা প্রশাসক অঞ্জন চন্দ্র পাল, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান, পুলিশ সুপার আ স ম মাহাতাব উদ্দিন, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি গোলাম ফারুক পিংকু, সাধারণ সম্পাদক নুর উদ্দিন চৌধুরী নয়ন, লক্ষ্মীপুর প্রেস ক্লাবের সভাপতি কামাল উদ্দিন হাওলাদার ও সাধারণ সম্পাদক সাইদুল ইসলাম পাবেল, জেলা বিএনপিসহ অন্যান্য রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতারা ফুল দেন। পরে শহরের বাগবাড়ীতে অবস্থিত গণকবরে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

চাঁদপুর : ভোরে মুক্তিযুদ্ধের ভাস্কর্য অঙ্গীকারে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক মাজেদুর রহমান খান, পুলিশ সুপার শামসুন্নাহার, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডার এম এ ওয়াদুদ, জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি নাসিরউদ্দিন আহম্মদ, সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম দুলাল, জেলা বিএনপির আহ্বায়ক শেখ ফরিদ আহমেদ মানিক, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ওছমান গনি পাটোয়ারী, জেলা সিভিল সার্জন, ডা. সফিকুল ইসলাম, বিএমএ জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক ডা. মাহমুদুন নবী মাসুম, সাবেক সভাপতি ডা. হারুন অর রশিদ সাগর, ইকবাল হোসেন পাটোয়ারী প্রমুখ। পরে চাঁদপুর স্টেডিয়ামে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে শিশু-কিশোর সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে সমবেত সুরে জাতীয় সংগীত পরিবেশন করে অংশগ্রহণকারীরা। এ ছাড়া জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা দেওয়া হয়।

ঝালকাঠি : স্থানীয় শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা হয়। এতে বক্তব্য দেন জেলা প্রশাসক মো. হামিদুল হক। এ সময় কুচকাওয়াজে অংশ নেয় পুলিশ, আনসার ও ভিডিপি, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স, বিএনসিসি, রোভার স্কাউট, বয়স্কাউট, গার্লস গাইড, গার্লন ইন স্কাউট, সরকারি শিশু পরিবার এবং স্কুল, কলেজ-মাদরাসার শিক্ষার্থীরা। পরে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা দেওয়া হয়।

বাকৃবি : বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতিস্তম্ভে শ্রদ্ধা জানান উপাচার্য ড. মো. আলী আকবর। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. জসিমউদ্দিন খানসহ বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক ও শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের সংগঠন ফুল দেয়। দুপুরে শহীদদের আত্মার মাগফিরাত ও শান্তি কামনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সব মসজিদ ও উপাসনালয়ে মোনাজাত করা হয়।

টাঙ্গাইল : স্টেডিয়ামে শিশু-কিশোরদের কুচকাওয়াজ ও শরীরচর্চা প্রদর্শনীতে জেলা প্রশাসক খান মো. নুরুল আমীন, পুলিশ সুপার রঞ্জিত কুমার রায় উপস্থিত ছিলেন। জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে জেলা পুলিশ প্রশাসনের উদ্যোগে মুক্তিযোদ্ধাদের স্বাস্থ্যসেবা দেওয়া হয়। এদিকে মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভাস্কর্য ‘প্রত্যয় ৭১’-এ শ্রদ্ধা জানান উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আলাউদ্দিন। পরে বিভিন্ন অনুষদের ডিন, রেজিস্ট্রার, চেয়ারম্যান, প্রভোস্ট, শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও শিক্ষার্থীরা ফুল দেয়। বাদ জোহর বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

 

গফরগাঁও (ময়মনসিংহ) : স্থানীয় ইসলামিয়া সরকারি হাই স্কুল মাঠে কুচকাওয়াজ উদ্বোধন ও সালাম গ্রহণ করেন সংসদ সদস্য ফাহমী গোলন্দাজ বাবেল। এ সময় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আশরাফ উদ্দিন বাদল, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ডা. শামীম রহমান, পৌর মেয়র এস এম ইকবাল হোসেন সুমন, সিনিয়র সহকারী কমিশনার (ভূমি) আশরাফুল সিদ্দিক, উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি অ্যাডভোকেট ডা. কে এম এহসান, গফরগাঁও থানার ওসি আবদুল আহাদ খান, পাগলা থানার ওসি মোখলেছুর রহমান আকন্দ ও সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। এদিকে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। স্থানীয় ইসলামিয়া সরকারি হাই স্কুলে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ডা. শামীম রহমান। প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আশরাফ উদ্দিন বাদল। এ ছাড়াও বক্তব্য দেন সিনিয়র সহকারী কমিশনার (ভূমি) আশরাফ সিদ্দিকী, গফরগাঁও থানার ওসি আবদুল আহাদ খান, মাহমুদুল হাসান জজ, নাসির উদ্দিন মনি, মফিজ উদ্দিন আহমেদ, বুলবুল, সলিম উল্লাহ মোস্তফা প্রমুখ। সভা শেষে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যসহ উপস্থিত প্রায় ১০০ জন মুক্তিযোদ্ধাকে সংবর্ধনা ও সম্মাননা দেওয়া হয়।

যশোর : টাউন হল মাঠে আলোচনাসভায় মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা দেওয়া হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন সংসদ সদস্য কাজী নাবিল আহমেদ। পরে হাসপাতাল, কারাগার ও এতিমখানায় খাবার বিতরণ করা হয়।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ : জেলা স্টেডিয়ামে পুলিশ, আনসার, ভিডিপি, বিএনসিসি, স্কাউটস, গার্ল গাইডস, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন সংগঠনের সালাম গ্রহণ করেন জেলা প্রশাসক মাহমুদুল হাসান ও পুলিশ সুপার টি এম মোজাহিদুল ইসলাম। পরে শাহ নেয়ামতুল্লাহ কলেজ মিলনায়তনে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবার, যুদ্ধাহত ও মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা দেওয়া হয়। এতে বক্তব্য দেন জেলা প্রশাসক মাহমুদুল হাসান, পুলিশ সুপার টি এম মোজাহিদুল ইসলাম, অধ্যক্ষ আনোয়ারুল ইসলাম প্রমুখ। এ ছাড়া এক্সিম ব্যাংক কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে আলোচনাসভায় বক্তব্য দেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. সৈয়দ জাবিদ হোসাইন, কোষাধ্যক্ষ মো. শাহরিয়ার কবির, রেজিস্ট্রার মো. আফতাব আলী প্রমুখ।

জামালপুর : শহরের জামালপুর উচ্চ বিদ্যালয় মাঠের শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানান সদর আসনের সংসদ সদস্য মো. রেজাউল করিম হীরা, জেলা প্রশাসক আহমেদ কবীর, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফারুক আহাম্মেদ চৌধুরী, পুলিশ সুপার মো. দেলোয়ার হোসেন, জামালপুর পৌরসভার মেয়র মির্জা সাখাওয়াতুল আলম মনি, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুহাম্মদ বাকী বিল্লাহ, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শাহ মো. ওয়ারেছ আলী মামুন। পরে জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ পরিবারের সদস্যদের সংবর্ধনা দেয়।

কুড়িগ্রাম : কুড়িগ্রামে ২০ জন মুক্তিযোদ্ধাকে সম্মাননা স্মারক দেওয়া হয়েছে। তাঁদের হাতে স্মারক তুলে দেন জেলা প্রশাসক মোছা. সুলতানা পারভীন ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. জাফর আলী। পরে জেলা স্টেডিয়ামে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে শুদ্ধভাবে জাতীয় সংগীত পরিবেশিত হয়। শিশু একাডেমির উদ্যোগে চিত্রাঙ্কন, আবৃত্তি, কুইজ ও দেশাত্মবোধক গানের প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।

নাটোর : শঙ্কর গোবিন্দ চৌধুরী স্টেডিয়ামে কুচকাওয়াজে অভিবাদন গ্রহণ করেন জেলা প্রশাসক শাহিনা খাতুন ও পুলিশ সুপার বিপ্লব বিজয় তালুকদার। এ সময় স্থানীয় সংসদ সদস্য শফিকুল ইসলাম শিমুল উপস্থিত ছিলেন।

নীলফামারী : স্বাধীনতা স্মৃতি অম্লানে শ্রদ্ধা জানান জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ খালেদ রহীম, পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আশরাফ হোসেন, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন। নীলফামারী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে সমবেত কণ্ঠে উচ্চারিত হয় জাতীয় সংগীত। পরে সেখানে সমাবেশ, কুচকাওয়াজ, শারীরিক কসরত প্রদর্শন ও ক্রীড়া প্রতিযোগিতা শেষে বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

ভোলা : মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতিস্তম্ভে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মাসুদ আলম সিদ্দিক শহীদদের প্রতি সম্মান জানান। পরে ভোলা পুলিশ সুপার, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড, জেলা আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠন শ্রদ্ধা জানায়। এ ছাড়া ভোলা যুগীরঘোল  বধ্যভূমিতে শহীদদের জন্য দোয়া করা হয়। দুপুরে ভোলা জেলা পরিষদ ও জেলা প্রশাসকের উদ্যোগে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা দেওয়া হয়।

মাগুরা : জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে মাগুরা বীর মুক্তিযোদ্ধা আছাদুজ্জামান স্টেডিয়ামে পুলিশ, আনসার, ভিডিপি, স্কাউট, গার্লস গাইড ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে কুচকাওয়াজ ও শরীরচর্চা প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়। জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আতিকুর রহমান ও পুলিশ সুপার খান মুহাম্মদ রেজোয়ান কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে সালাম গ্রহণ করেন। দুপুরে কালেক্টরেট চত্বরে মুক্তিযোদ্ধা ও তাঁদের পরিবারের সদস্যদের সংবর্ধনা দেওয়া হয়।

গোপালগঞ্জ : রাত ১২টা ১ মিনিটে টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিসৌধে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মোখলেসুর রহমান সরকার। এ সময় পুলিশ সুপার মো. সাইদুর রহমান খান, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি চীৎধুরী এমদাদুল হক, সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব আলী খানসহ আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতারা উপস্থিত ছিলেন। পরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে ফুল দেয়। তারা ফাতিহা পাঠ ও বিশেষ মোনাজাতও করে।

এদিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে উপাচার্য অধ্যাপক ড. খোন্দকার নাসির উদ্দিনের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন অর্থনীতি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক তানিয়া ইসলাম, প্রভাষক ড. হাসিবুর রহমান, তাপস বালা, লুত্ফুল কবির প্রমুখ।

শাবিপ্রবি : শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি ভবনের সামনে জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা হয়। পরে শহীদ মিনার ও বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দেন উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ। এ ছাড়া বঙ্গবন্ধুর ভাষণ ও দেশাত্মবোধক গান, আলোচনাসভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

রাজবাড়ী : জেলা শহরের শহীদ আব্দুল আজিজ খুশি রেলওয়ে ময়দানে পুলিশ, আনসার, বিএনসিসি, রোভার-গার্লস গাইড ও স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে সম্মিলিত মার্চপাস্ট, কুচকাওয়াজ ও শারীরিক কসরত অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী ও রাজবাড়ী-১ আসনের সংসদ সদস্য কাজী কেরামত আলী, সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য কামরুন্নাহার চৌধুরী, জেলা প্রশাসক মো. শওকত আলী, পুলিশ সুপার আসমা সিদ্দিকা মিলি, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ফকির আব্দুল জব্বার, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) রেবেকা খান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ রাকিব খান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আব্দুর  রহমান উপস্থিত ছিলেন।

সাতক্ষীরা : স্টেডিয়ামে বেলুন ও কবুতর উড়িয়ে দিবসটির উদ্বোধন করেন সংসদ সদস্য মীর মোস্তাক আহমেদ রবি, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইফতেখার হোসেন ও জেলা পুলিশ সুপার মো. সাজ্জাদুর রহমান। এ সময় একযোগে জাতীয় সংগীত পরিবেশিত হয়। এতে আরো উপস্থিত ছিলেন সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক বিশ্বাস সুদেব কুমার, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. নজরুল ইসলাম, স্থানীয় সরকার বিভাগের উপপরিচালক আব্দুল লতিফ খান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. জাকির হোসেন, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোতাকাব্বির আহমেদ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. আব্দুল হান্নান, সিভিল সার্জন ডা. তওহীদুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কে এম আরিফুল হক, পৌর মেয়র তাজকিন আহমেদ চিশতী, এনএসআই সাতক্ষীরার অতিরিক্ত পরিচালক আনিছুজ্জামান, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাহমিনা খাতুন, সাতক্ষীরা সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক মো. আব্দুল খালেক প্রমুখ।

 

নওগাঁ : জেলা প্রশাসক মো. মিজানুর রহমান, পুলিশ সুপার মো. ইকবাল হোসেন, জেলা মুক্তিযোদ্ধা ইউনিট, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট ফজলে রাব্বী, পৌর মেয়র নজমুল হক সনি, জেলা আওয়ামী লীগ, বিএনপি, চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি, জেলা প্রেস ক্লাব, নওগাঁ সরকারি কলেজ, বিএমসি সরকারি মহিলা কলেজ, নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা), সড়ক ও জনপথ, এলজিইডি, গণপূর্ত বিভাগ, বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড, এডাব, বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও বিভিন্ন রাজনৈতিক দল শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে ফুল দেয়। এ ছাড়া নওগাঁ স্টেডিয়ামে স্বেচ্ছায় রক্তদান, কুচকাওয়াজ, সালাম গ্রহণ, ডিসপ্লে প্রদর্শন ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত হয়। জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ চত্বরে মুক্তিযোদ্ধা মঞ্চে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা, আলোচনাসভা ও অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাদের অনুদান প্রদান এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়। বিকেলে নওগাঁ স্টেডিয়ামে প্রীতি ফুটবল খেলা অনুষ্ঠিত হয়।

চুয়াডাঙ্গা : পুরাতন স্টেডিয়ামে কুচকাওয়াজ ও ডিসপ্লে প্রদর্শনীতে সালাম গ্রহণ করেন জেলা প্রশাসক জিয়াউদ্দীন আহমেদ ও পুলিশ সুপার মাহবুবুর রহমান। পরে জেলা শিশু একাডেমিতে শিশুদের জন্য মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক চিত্রাঙ্কন ও রচনা প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। জেলা শিল্পকলা একাডেমির মুক্তমঞ্চে মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যদের সংবর্ধনা দেওয়া হয়।

শেরপুর : শহীদ মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতিস্তম্ভে এক মিনিট নীরবতা পালন করে সংসদ সদস্য হুইপ মো. আতিউর রহমান আতিক, জেলা প্রশাসক ড. মল্লিক আনোয়ার হোসেন, পুলিশ সুপার মো. রফিকুল হাসান গনি, পৌর মেয়র গোলাম মোহাম্মদ কিবরিয়া শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান। এদিকে স্থানীয় শহীদ মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতি স্টেডিয়ামে কুচকাওয়াজ ও শারীরিক কসরত অনুষ্ঠানে বিভিন্ন স্কুল-কলেজের স্কাউট, গার্লস গাইড, রোভার, বিএনসিসি, রেড ক্রিসেন্ট স্বেচ্ছাসেবকরা অংশ নেয়। এ ছাড়া জেলার বিভিন্ন স্থানে সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের পক্ষে বিনা মূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় ও রক্তদান কর্মসূচির আয়োজন করা হয়।

ভালুকা (ময়মনসিংহ) : ভালুকায় বিনা মূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় ও স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচি পালিত হয়েছে। স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘অভ্যুদয়’ ও ‘সন্ধানী’ ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ ইউনিটের উদ্যোগে ভালুকা ডিগ্রি কলেজ মাঠে সকাল ৮টা থেকে দুপুর পর্যন্ত চলে এই কর্মসূচি। রক্তদান কর্মসূচি পরিদর্শন করেন সংসদ সদস্য অধ্যাপক ডা. এম আমান উল্লাহ, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা, পৌর মেয়র ডা. এ কে এম মেজবাহ উদ্দিন কাইয়ুম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাসুদ কামাল, উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান কাজিম উদ্দিন আহাম্মেদ ধনু, উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম পিন্টু, ভালুকা মডেল থানার ওসি মামুন-অর-রশিদ, অ্যাপোলো ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষ এ আর এম শামছুর রহমান লিটন, সহকারী কমিশনার (ভূমি) দিপায়ন দাস শুভ, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার একরামুল্লাহ্।

সুনামগঞ্জ : জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে শহীদ আবুল হোসেন মিলনায়তনে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনাসভায় বক্তব্য দেন জেলা প্রশাসক মো. সাবিরুল ইসলাম, মুক্তিযোদ্ধা আবু সুফিয়ান, আলী আমজাদ প্রমুখ।

সিরাজগঞ্জ : মুক্তির সোপানে ফুল দিয়ে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক কামরুন নাহার সিদ্দীকা ও পুলিশ সুপার মিরাজ উদ্দিন আহমেদ।

ইবি : ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের নিজস্ব ওয়েবসাইট উদ্বোধন ও আবাসিক শিক্ষার্থীদের মধ্যে স্মার্ট আইডি কার্ড বিতারণ করা হয়েছে। পতাকা উত্তোলন শেষে সকাল ১০টার দিকে প্রশাসন ভবন থেকে উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন উর রশিদ আসকারীর নেতৃত্বে বর্ণাঢ্য একটি শোভাযাত্রা বের হয়। ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্মৃতিসৌধে এসে শ্রদ্ধাঞ্জলি দেন উপাচার্য। এ সময় উপস্থিত ছিলেন কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. সেলিম তোহা, রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) এস এম আব্দুল লতিফ। শেষে উপাচার্যের অফিসকক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত সংস্থাপন শাখার সহকারী রেজিস্ট্রার (প্রশাসন) মুক্তিযোদ্ধা মো. মোতাহার হোসেনকে সম্মাননা দেওয়া হয়।

কালিয়াকৈর (গাজীপুর) : কালিয়াকৈরের গোলাম নবী পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম। বক্তব্য দেন উপজেলা চেয়ারম্যান রেজাউল করিম রাসেল, ওসি রফিকুল ইসলাম, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার শাহাবুদ্দিন আহসান, আ. রশিদ, অ্যাডভোকেট দেওয়ান মো. ইব্রাহিম, আসাদুজ্জামান আসাদ  প্রমুখ। সভায় ২০ জন মুক্তিযোদ্ধাকে পাঁচ হাজার টাকা করে অনুদান দেওয়া হয়। এদিকে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি কামাল উদ্দিন সিকদারের সভাপতিত্বে সফিপুরে আলোচনাসভায় বক্তব্য দেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুরাদ কবীর, অ্যাডভোকেট রফিক উদ্দিন আহম্মেদ, সেলিম আজাদ, অ্যাডভোকেট হারুন অর রশিদ, সরকার মোশারফ হোসেন জয়, হাবিবুর রহমান সিকদার, আতাউর রহমান জয়, ইব্রাহিম খলিল বাবু প্রমুখ।

নারায়ণগঞ্জ : নারায়ণগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম বাবু, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. শাহজালাল মিয়া, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুরাইয়া খান, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের মুক্তিযোদ্ধারা, আড়াইহাজার পৌরসভার মেয়র হাবিবুর রহমান, সরকারি সফর আলী কলেজ ও আড়াইহাজার প্রেস ক্লাবের সাংবাদিকসহ বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষে মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সামনে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতিসৌধে ফুল দিয়ে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হয়। পরে শহীদ মঞ্জুর স্টেডিয়ামে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, কুচকাওয়াজ ও শরীরচর্চা প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া : ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় স্মৃতিসৌধে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান সংসদ সদস্য র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী, জেলা প্রশাসক রেজওয়ানুর রহমান, পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান। নিয়াজ মুহাম্মদ স্টেডিয়ামে কুচকাওয়াজ ও ডিসপ্লে অনুষ্ঠিত হয়।

মুন্সীগঞ্জ : মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা, ক্রীড়া ও সাঁতার প্রতিযোগিতা, মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক চলচ্চিত্র প্রদর্শনী, সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা, আলোচনাসভা ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে মুন্সীগঞ্জে দিবসটি পালিত হয়েছে। স্টেডিয়ামে ডিসপ্লে ও কুচকাওয়াজে সালাম গ্রহণ করেন জেলা প্রশাসক সায়লা ফারজানা ও জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জায়েদুল আলম। এসব অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মোহম্মদ মহিউদ্দিন, স্থানীয় সংসদ সদস্য সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি, অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস, জেলা প্রশাসক সায়লা ফারজানা, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জয়েদুল আলম, সরকারি হরগঙ্গা কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মীর মাহফুল হক, সিভিল সার্জন ডা. মো. হাবিবুর রহমান, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আনিছ-উজ জামান, মীর নাসিরউদ্দিন উজ্জ্বল, রাসেল মাহমুদ প্রমুখ।

গাজীপুর : সকালে শহীদ স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধা জানান জেলা প্রশাসক ড. দেওয়ান মোহাম্মদ হুমায়ুন কবীর। পরে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, কুচকাওয়াজ, শরীরচর্চা প্রদর্শনী, আলোচনাসভা, শহীদ পরিবার ও মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা, দোয়া মাহফিল, প্রীতি ফুটবল ম্যাচসহ দিনব্যাপী নানা কর্মসূচি পালন করা হয়। এ ছাড়া আওয়ামী লীগ, বিএনপি, শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় আলাদাভাবে দিবসটি পালন করে। সন্ধ্যায় সরকারি ভবনে আলোকসজ্জা, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

দিনাজপুর : জেলা প্রশাসকের কার্যালয় চত্বরে শহীদ স্মৃতিসৌধে এবং বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানান জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম। পরে জেলা প্রশাসক ড. আবু নঈম মুহাম্মদ আবদুছ ছবুর, পুলিশ সুপার হামিদুল আলম এবং মুক্তিযোদ্ধা সংসদের পক্ষে ডেপুটি কমান্ডার সাইদুর রহমান শহীদ স্মৃতিসৌধে ফুল দেন। এ ছাড়াও দিনাজপুরের অন্য উপজেলাগুলোতে দিবসটি পালিত হয়েছে। খানসামা উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত অনুষ্ঠানে মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের হত্যা, নির্যাতন ও অত্যাচারের চিত্র তুলে ধরা হয়।

সৈয়দপুর (নীলফামারী) : রেলওয়ে শহীদ স্মৃতি পার্ক শহীদ মিনারে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে শহীদদের প্রতি প্রথম শ্রদ্ধা জানানো হয়। পরে শহরের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও সামাজিক, সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক এবং শ্রমিক সংগঠন ফুল দেয়। সৈয়দপুর স্টেডিয়ামে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. মোখছেদুল মোমিন জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন। কুচকাওয়াজে অভিবাদন গ্রহণ করেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. মোখছেদুল মোমিন। শেষে মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ পরিবারের সদস্যদের সংবর্ধনা দেওয়া হয়।

সোনারগাঁ (নারায়ণগঞ্জ) : সোনারগাঁ উপজেলা প্রশাসন, স্থানীয় সংসদ সদস্য, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, শহীদ মজনু পার্কের মুক্তিযুদ্ধের বিজয়স্তম্ভে ও বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশনের বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানায়। পরে সোনারগাঁ পৌরসভার আমিনপুর মাঠে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে কুচকাওয়াজ ও শারীরিক কসরত অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শাহীনুর ইসলাম, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) বি এম রুহুল আমিন রিমন, নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডা. আবু জাফর বিরু চৌধুরী প্রধান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।



সাতদিনের সেরা