kalerkantho

বুধবার । ১১ কার্তিক ১৪২৮। ২৭ অক্টোবর ২০২১। ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

সালথায় আওয়ামী লীগে হাঙ্গামা

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফরিদপুর   

২৪ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সালথায় আওয়ামী লীগে হাঙ্গামা

ফরিদপুরের সালথা উপজেলায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে স্থানীয় আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে ১২ জন আহত হয়েছে। গতকাল শনিবার সকালে উপজেলার মাঝারদিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ, এলাকাবাসী ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও মাঝারদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান হামিদের সমর্থকদের সঙ্গে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সেলিম মাতুব্বরের বিরোধ চলছে। এর জেরে গতকাল সকাল সাড়ে ৮টার দিকে মাঝারদিয়া গ্রামে দুই পক্ষের শতাধিক সমর্থক দেশীয় অস্ত্র ঢাল-কাতরা, সড়কি-ভেলা, রামদা নিয়ে মুখোমুখি অবস্থান নেয়। একপর্যায়ে ধাওয়াধাওয়ি ও ইটপাটকেল ছোড়াছুড়ি ঘটে। ঘণ্টাব্যাপী চলে এ সংঘর্ষ। খবর পেয়ে পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। আহতদের নগরকান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এলাকায় পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

হাবিবুর রহমান বলেন, ‘সেলিমের লোকজন গত শুক্রবার আমার লোকজনের গলায় গামছা দেওয়ার হুমকি দেয়। এর জেরে গতকাল সকালে সমর্থকরা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।’

সেলিম মাতুব্বর বলেন, ‘হামিদের লোকজন আমার সমর্থকদের ওপর হামলা করেছে।’

সালথা থানার পরিদর্শক মো. দেলোয়ার হোসেন খান বলেন, সংঘর্ষের খবর পেয়ে পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। এলাকায় পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

আলফাডাঙ্গায় পাঁচ আ. লীগ নেতাকে বহিষ্কার

আলফাডাঙ্গা পৌরসভা এবং সদর, বুড়াইচ ও গোপালপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন আগামী বৃহস্পতিবার। এ নির্বাচনে বিদ্রোহ করায় চার প্রার্থীসহ পাঁচ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে আলফাডাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগ। তাঁরা হলেন আলফাডাঙ্গা পৌরসভার মেয়রপ্রার্থী ও উপজেলা আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি মকিবুল হাসান পটু মিয়া, আলফাডাঙ্গা সদর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান প্রার্থী ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক এ কে এম আহাদুল হাসান, গোপালপুর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান প্রার্থী ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম খান, বুড়াইচ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আব্দুল ওহাব পান্নু এবং বুড়াইচ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহসভাপতি জাহাঙ্গীর আলম। তাঁরা সবাই দলীয় প্রার্থীর বিদ্রোহী।

আলফাডাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এস এম আকরাম হোসেন জানান, বিদ্রোহী প্রার্থীদের নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর জন্য একাধিকবার অনুরোধ করা হয়েছে। কিন্তু তাঁরা কেউই প্রার্থিতা প্রত্যাহার করেননি। গঠনতন্ত্র অনুযায়ী উপজেলা কমিটি সভায় তাঁদের বহিষ্কারের জন্য সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এ অনুযায়ী পাঁচজনকে চূড়ান্তভাবে বহিষ্কারের জন্য জেলা কমিটির কাছে সুপারিশ করা হয়েছে।

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সুবল চন্দ্র সাহা জানান, দলীয় সিদ্ধান্ত অমান্য করে নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থী হওয়ার কোনো সুযোগ নেই।



সাতদিনের সেরা