kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৯ নভেম্বর ২০১৯। ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২১ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

বিদ্যুৎস্পর্শে দুই শিশুসহ তিনজনের মৃত্যু, আহত ৪

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

২৭ আগস্ট, ২০১৬ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মেহেরপুরের গাংনী, গাজীপুরের টঙ্গী ও পাবনার সাঁথিয়ায় বিদ্যুত্স্পৃষ্ট হয়ে দুই শিশুসহ তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে ও গতকাল শুক্রবার এসব ঘটনা ঘটে।

মেহেরপুর : গাংনী উপজেলার নওপাড়া গ্রামে বিদ্যুত্স্পৃষ্টে মৃত স্কুল ছাত্রের নাম জনি হোসেন (৮)। বৃহস্পতিবার রাতে কুষ্টিয়া মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। সে নওপাড়া গ্রামের জয়নাল হোসেনের ছেলে ও বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্র। জনির পরিবার জানায়, বৃহস্পতিবার বিকেলে নিজ বাড়িতে টেলিভিশনের প্লাগ লাগাতে গিয়ে বিদ্যুত্স্পৃষ্ট হয়েছিল জনি।

টঙ্গী (গাজীপুর) : বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে টঙ্গী কাঁঠালদিয়া এলাকায় একটি গ্যারেজে ব্যাটারিচালিত রিকশায় চার্জ দিতে গিয়ে বিদ্যুত্স্পৃষ্ট হয়ে শ্রমিক হাবিবুর রহমানের (২২) মৃত্যু হয়। তিনি ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়া থানা এলাকার এনায়েতপুর গ্রামের আব্দুল মজিদ মিয়ার ছেলে। টঙ্গী কাঁঠালদিয়ায় মান্নানের বাড়িতে ভাড়া থেকে ওই গ্যারেজে রিকশা মেরামতের কাজ করতেন তিনি। মজিদ মিয়া জানান, এ ঘটনায় গতকাল টঙ্গী মডেল থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা শেষে ময়নাতদন্তের জন্য লাশ গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

পাবনা (আঞ্চলিক) : গতকাল সাঁথিয়ার পিপুলিয়া কারিগরপাড়ায় নানাবাড়িতে বিদ্যুত্স্পৃষ্ট হয়ে শিশু ইমরানের (২) মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় আহত হন চারজন। ইমরান উপজেলার ছেঁচানিয়া গ্রামের ইয়াসিন আলীর ছেলে।

এলাকাবাসী জানায়, বৃহস্পতিবার রাতে ঝড়-বৃষ্টিতে বিদ্যুতের তার ছিঁড়ে ইমরানের নানাবাড়ির টিনের ঘরের ওপর পড়ে। গতকাল সকালে বিদ্যুৎ এলে ঘরটি বিদ্যুতায়িত হয়। লোকজন ঘর থেকে তাড়াহুড়া করে বের হতে গেলে ইমরান টিনের বেড়ার সঙ্গে বিদ্যুত্স্পৃষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যায়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা