kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০২২ । ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

দরিদ্র মানুষের ওপর পরোক্ষ কর কমানোর আহ্বান

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দক্ষিণ এশিয়ার চরম বৈষম্য নিরসনে দরিদ্র মানুষের ওপর পরোক্ষ কর কমাতে হবে। কাঠামোগত উন্নয়নের পরিবর্তে শিক্ষা, স্বাস্থ্য, সামাজিক নিরাপত্তা ও পরিবেশ সুরক্ষা ইত্যাদি খাতের উন্নয়ন বাড়াতে হবে। গতকাল বৃহস্পতিবার বৈদেশিক ঋণ, কর ব্যবস্থাপনা ও রাজস্ব বিচারবিষয়ক আলোচনাসভায় এ কথা বলেন বিভিন্ন সংস্থার প্রতিনিধিরা।

বাংলাদেশ নারী প্রগতি সংঘ (বিএনপিএস), সাউথ এশিয়ান অ্যালায়েন্স ফর পোভার্টি ইরাডিকেশন (স্যাপি) ও জনউদ্যোগ এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

বিজ্ঞাপন

রাজধানীর মোহাম্মদপুরে বিএনপিএস মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সভায় মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক এম এম আকাশ।

এম এম আকাশ বলেন, চরম বৈষম্য ও আর্থিক অবিচার দক্ষিণ এশিয়ার উন্নয়নশীল দেশগুলোর নাগরিকদের পঙ্গু করে দিচ্ছে। প্রচুর বৈদেশিক ঋণ থাকার কারণে সাধারণ মানুষের জীবন বিপন্ন হয়ে পড়েছে, বিশেষ করে শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তানে। দ্রুতগতিতে কোটিপতির সংখ্যা এবং জিডিপি বৃদ্ধি পাওয়া সত্ত্বেও নেপাল ব্যতীত দক্ষিণ এশিয়ার বেশির ভাগ দেশে কর সংগ্রহের হার অসম্ভবভাবে কম। বাংলাদেশের ক্ষেত্রে কর যে পরিমাণে সংগ্রহ করা হচ্ছে, তার চেয়ে অনেক বেশি ব্যয় করা হচ্ছে। শিক্ষা, স্বাস্থ্য, সামাজিক নিরাপত্তা ও পরিবেশ সুরক্ষার মতো খাতকে কম গুরুত্ব দিয়ে অপ্রয়োজনীয় খাতে ব্যয় বেশি করা হচ্ছে।

বিএনপিএসের নির্বাহী পরিচালক রোকেয়া কবীর বলেন, বাংলাদেশের ৯০ শতাংশ মানুষ ইনফরমাল সেক্টরে কাজের সঙ্গে যুক্ত এবং ১৫ শতাংশ জনগণের গড় মাথাপিছু আয় ৫০০ টাকার কম। দেশে নতুন দরিদ্র জনগণের সংখ্যা এক কোটি ৮৪ লাখ। করোনাকালে শহুরে কর্মজীবীদের আয় ৬০ শতাংশ কমেছে।

 



সাতদিনের সেরা