kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১ ডিসেম্বর ২০২২ । ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ ।  ৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

সিলেটের মানুষ পাসপোর্ট কার্যালয়কে ভয় পায়

পরিচালকের সামনেই দালালের দৌরাত্ম্য নিয়ে ভুক্তভোগীদের ক্ষোভ

সিলেট অফিস   

২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সিলেটে মতবিনিময়সভায় বিভাগীয় আঞ্চলিক পাসপোর্ট কার্যালয়ের পরিচালক এ কে এম মাজহারুল ইসলামের উপস্থিতিতেই পাসপোর্ট অফিসে দালালদের দৌরাত্ম্য ও নানা ভোগান্তির অভিযোগ তুলে ধরলেন ভুক্তভোগীরা। গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১১টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত প্রায় তিন ঘণ্টাব্যাপী এই মতবিনিময়সভা অনুষ্ঠিত হয়।  

ভুক্তভোগীসহ নানা শ্রেণি-পেশার মানুষ অভিযোগ করেন, দালাল ছাড়া পাসপোর্ট করতে গেলে নানা হয়রানির শিকার হতে হয়। দালাল ধরলে আবেদনগুলোতে ‘বিশেষ চিহ্ন’ দেওয়া থাকে।

বিজ্ঞাপন

চিহ্নধারী আবেদনকারীরা আঙুলের ছাপ ও ছবি তোলায় অগ্রাধিকারসহ দ্রুত পাসপোর্ট পেয়ে যান। এটি ওপেন সিক্রেট হলেও কোনো প্রতিকার নেই।

পাসপোর্টসংক্রান্ত জটিলতা ও হয়রানি দূর করতে যৌথভাবে সিলেট বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয় ও বিভাগীয় আঞ্চলিক পাসপোর্ট কার্যালয় এই মতবিনিময়সভার আয়োজন করে। সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন সিলেটের বিভাগীয় কমিশনার মুহাম্মদ মোশাররফ হোসেন।

সিলেটের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) দেবজিৎ সিংহের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন পুলিশের সিলেট রেঞ্জের উপমহাপরিদর্শক (ডিআইজি) মফিজ উদ্দিন আহম্মেদ ও বিভাগীয় আঞ্চলিক পাসপোর্ট কার্যালয়ের পরিচালক এ কে এম মাজহারুল ইসলাম।

জনপ্রতিনিধি, বিশ্ববিদ্যালয়-কলেজের শিক্ষক, আইনজীবী, ব্যবসায়ী, আওয়ামী লীগ নেতাসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ আলোচনায় অংশ নিয়ে সিলেটের পাসপোর্ট কার্যালয়ে নিজেদের দুর্ভোগ ও ভোগান্তির কথা জানিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

সভায় সিলেট সদর উপজেলার খাদিমপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আফসর আহমদ বলেন, ‘পাসপোর্ট কার্যালয়কে সিলেটের মানুষ সবচেয়ে বেশি ভয় পায়। ’

সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি মাসুক উদ্দিন আহমদ অভিযোগ করেন, সম্প্রতি তাঁর পরিচিতি এক ছাত্রলীগ নেতা গুরুতর অসুস্থ হয়ে ভারতে চিকিৎসার জন্য যেতে পাসপোর্ট করতে নগদ ২০ হাজার টাকা ঘুষ দিয়েছেন।

মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক জাকির হোসেন বলেন, প্রতিদিন প্রায় ৮০০ মানুষ পাসপোর্ট কার্যালয়ে সেবা নেয়। একেকজন গড়ে দুই হাজার টাকা দিলেও ১৬ লাখ টাকার অবৈধ লেনদেন সিলেট পাসপোর্ট কার্যালয়ে হয়ে থাকে।

এসব অভিযোগ প্রসঙ্গে বিভাগীয় আঞ্চলিক পাসপোর্ট কার্যালয়ের পরিচালক এ কে এম মাজহারুল ইসলাম বলেন, পাসপোর্টের দীর্ঘ সূত্রতার বিষয়ে তাঁর কিছু করার নেই। কারণ পাসপোর্টগুলো ঢাকা থেকে প্রস্তুত করা হয়। এ ছাড়া সার্ভারজনিত সমস্যার সমাধানও তাঁর হাতে নেই।



সাতদিনের সেরা