kalerkantho

শুক্রবার । ২ ডিসেম্বর ২০২২ । ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ ।  ৭ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

শত ফুট প্রস্থের খাল এখন পাঁচ ফুট

ফুলপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি   

২০ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শত ফুট প্রস্থের খাল এখন পাঁচ ফুট

ময়মনসিংহের ফুলপুর উপজেলার ভাইটকান্দি এলাকার মাড়াদেওড়া খালটি প্রভাবশালীদের দখলে অস্তিত্ব সংকটে পড়েছে। ছবি : কালের কণ্ঠ

ময়মনসিংহের ফুলপুর উপজেলার ভাইটকান্দি এলাকার মাড়াদেওড়া খালটি প্রভাবশালীদের দখলে অস্তিত্ব সংকটে পড়েছে। একসময়ের শত ফুট প্রস্থের খালটি এখন পাঁচ ফুটের সরু নালায় পরিণত হয়েছে। গত ৫০ বছরেও এটি খনন করা হয়নি। ফলে পাশের দুই গ্রামের শত শত কৃষক জমিতে সেচ দেওয়া নিয়ে ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন।

বিজ্ঞাপন

স্থানীয়রা জানায়, ভাইটকান্দি ইউনিয়নের মাড়াদেওড়া, চানপুর, শিববাড়ী, মোকামিয়া, বালিচান্দা গ্রামের নিষ্কাশিত পানি এ খালের মাধ্যমে বালিচান্দা বিলে গিয়ে পড়ে। ফলে কয়েক গ্রামের মানুষ জলাবদ্ধতা থেকে রক্ষা পায়।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, একসময়ের শত ফুট প্রস্থের মাড়াদেওড়া খালের দুই পাশ দখল করার হিড়িক পড়ছে। খালের দুই পাশে বিভিন্ন ধরনের গাছ লাগানো হচ্ছে। পাশাপাশি দুই তীর দখল করে আবাদ করা হচ্ছে। আবার কোনো কোনো স্থানে পুকুর খনন করে মাছ চাষ করছে লোকজন। বর্তমানে নাব্যতা হারিয়ে বিলুপ্তির পথে খালটি। এ ব্যাপারে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি বা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি না থাকায় দখলের তীব্রতা দিন দিন বাড়ছে।

স্থানীয়রা জানায়, একসময় এই খাল দিয়ে নৌকা চলাচল করত। জেলেরা খালে মাছ ধরতেন। কয়েক গ্রামের মানুষ গোসল করত। বর্তমানে দখলবাজদের কবলে পড়ে খালটি অস্তিত্ব সংকটে পড়েছে। এটি এখন পাঁচ-সাত ফুট প্রস্থের সরু নালায় পরিণত হয়েছে। শুকনা মৌসুমে পানি না থাকায় ফসলে সেচ দিতে গিয়ে ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন স্থানীয় কৃষকরা।

স্থানীয় ইসহাক মিয়া, সাহেদ আলী, রফিকুল ইসলামসহ ভুক্তভোগী কয়েকজন কৃষক বলেন, একসময় এ খাল দিয়ে ছোট-বড় নৌকা চলাচল করত। জেলেরা মাছ ধরে জীবিকা নির্বাহ করতেন। কৃষকরা জমিতে সেচ দিতেন। খালটি ফের খনন করা গেলে কৃষকসহ এলাকার হাজার হাজার মানুষের উপকার হবে।

স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল আজিজ বলেন, ‘খালটি খনন ও দখলদারির হাত থেকে রক্ষা করতে আমরা উপজেলা প্রশাসনের কাছে জোর দাবি জানাচ্ছি। খালটি আগের মতো সচল করা গেলে কৃষকদের চাষাবাদে সুবিধা হবে। ’

ভাইটকান্দি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলাল উদ্দিন আহামদ বলেন, ‘খালটি দখলমুক্ত ও খনন করার জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করা হয়েছে। ’

 



সাতদিনের সেরা