kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০২২ । ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

২৭ বিশিষ্ট নাগরিকের বিবৃতি

অবৈধ আটক, গুম বন্দিশালা অবিলম্বে বন্ধ করতে হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২০ আগস্ট, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অবৈধভাবে আটক, গুম ও বন্দিশালা অবিলম্বে বন্ধের আহ্বান জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন দেশের ২৭ বিশিষ্ট নাগরিক। গতকাল শুক্রবার যৌথ বিবৃতিতে তাঁরা বলেন, বিভিন্ন বাহিনী ও এজেন্সির বিরুদ্ধে দীর্ঘদিন ধরে জাতিসংঘের মানবাধিকার পরিষদসহ দেশি-বিদেশি বিভিন্ন ফোরামে গুম, নির্যাতন, অবৈধ আটকসহ মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছিল। সম্প্রতি সুইডেনভিত্তিক একটি অনলাইন পোর্টাল ও আরো কিছু গণমাধ্যমে গুম ও অবৈধ আটকের শিকার ব্যক্তিদের প্রত্যক্ষ অভিজ্ঞতার যে বিবরণ পাওয়া যাচ্ছে, তা আমাদের উদ্বিগ্ন করেছে।

বিবৃতিদাতারা হলেন মানবাধিকারকর্মী হামিদা হোসেন, সুজনের প্রধান ড. বদিউল আলম মজুমদার, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী শাহদীন মালিক, সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান, অধ্যাপক আলী রীয়াজ, অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ, অধ্যাপক আসিফ নজরুল, অধ্যাপক স্বপন আদনান, অধ্যাপক পারভীন হাসান, অধ্যাপক ফিরদৌস আজিম, সাবেক মন্ত্রিপরিষদসচিব আলী ইমাম মজুমদার, আলোকচিত্রী শহিদুল আলম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক গীতি আরা নাসরিন, সামিনা লুত্ফা, শাহনাজ হুদা, আইনজীবী তবারক হোসেইন, মানবাধিকারকর্মী শিরীন হক, হানা শামস আহমেদ, সঞ্জীব দ্রং, অরূপ রাহী, নূর খান লিটন, রেহনুমা আহমেদ, নাসের বখতিয়ার, সুব্রত চৌধুরী, গবেষক নোভা আহমেদ ও অ্যাডভোকেট সালমা আলী।

বিজ্ঞাপন

যৌথ বিবৃতিতে ২৭ বিশিষ্ট নাগরিক বলেন, বাংলাদেশে সংবিধান অনুযায়ী নির্যাতন, গুম এবং অবৈধ আটক সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ। কোনো ব্যক্তিকে বৈধভাবে আটক করার ক্ষেত্রেও তাকে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে বিচারিক আদালতে প্রেরণ করার বাধ্যবাধকতা রয়েছে সংবিধানে।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, আমরা অবিলম্বে গুম, নির্যাতন, অবৈধ আটক সম্পূর্ণভাবে বন্ধ করার এবং এসব অপরাধের সঙ্গে জড়িত হিসেবে যেসব কর্মকর্তা এবং এজেন্সির নাম গণমাধ্যমে পাওয়া যাচ্ছে তাদের ব্যাপারে সুনির্দিষ্ট তদন্তের দাবি জানাচ্ছি।



সাতদিনের সেরা