kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০২২ । ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

ফরিদপুর কারাগারে চিকিৎসক নেই, রোগী দেখছেন ফার্মাসিস্ট

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফরিদপুর   

১৭ আগস্ট, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ফরিদপুর কারাগারে চিকিৎসক নেই, রোগী দেখছেন ফার্মাসিস্ট

ফরিদপুর জেলা কারাগারের চিকিৎসাকেন্দ্রের একমাত্র সহকারী সার্জনের পদটি এক যুগ ধরে শূন্য। এখানে কোনো চিকিৎসক নেই, একজন ফার্মাসিস্ট কাজ চালিয়ে নিচ্ছেন।

১৮২৫ সালে ৩৪ একর জায়গা নিয়ে প্রতিষ্ঠিত কারাগারের ভেতরে একটি টিনশেড কক্ষ রোগীদের চিকিৎসার জন্য রাখা হলেও তা ব্যবহারের অনুপযোগী। সেখানে রোগীদের ভর্তি রেখে চিকিৎসার কোনো সুযোগ নেই।

বিজ্ঞাপন

ফরিদপুর জেলা কারাগারের তত্ত্বাবধায়ক আব্দুল্লাহ-আল-মামুন বলেন, এই কারাগারে ধারণক্ষমতার দ্বিগুণের বেশি বন্দি রয়েছে। তার ওপর আশপাশের জেলা থেকেও অসুস্থ বন্দিরা আসেন। এখানে একটি পদ রয়েছে সহকারী সার্জনের। পদটি এক যুগের বেশি সময় ধরে শূন্য। জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে একজন চিকিৎসককে প্রেষণে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। তিনি মাঝে মাঝে আসেন। এর বাইরে একজন সিনিয়র ফার্মাসিস্ট রয়েছেন। যে জনবল রয়েছে তাতে একজন বন্দিকে বাইরের হাসপাতালে পাঠানো হলে তার পেছনে তিনজন পুলিশ সদস্যকে পাহারার জন্য দিতে হয়। এতে অন্য কাজের ব্যাঘাত ঘটে।

কারাগারের প্রাথমিক চিকিৎসাসেবার দায়িত্বে থাকা ফার্মাসিস্ট আশরাফুল আলম বলেন, ‘এ কারাগারে বন্দিদের জন্য দুই থেকে তিনজন সার্বক্ষণিক চিকিৎসক এবং তিন থেকে চারজন সেবিকা দরকার। এ ছাড়া অসুস্থ বন্দিদের চিকিৎসাসেবা দেওয়ার জন্য পৃথক হাসপাতাল ভবন এবং রোগ নির্ণয়ের ব্যবস্থা থাকা দরকার। ’

এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসক অতুল সরকার বলেন, ‘জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে একজন চিকিৎসককে কারাগারের বন্দিদের দেখার জন্য সংযুক্ত করা হয়েছে। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিয়মিত কারাগার পরিদর্শন করা হয়। বন্দিদের সুবিধা-অসুবিধার খোঁজ নেওয়া হয়। বড় কোনো সমস্যা সৃষ্টি হলে তাত্ক্ষণিক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়। ’



সাতদিনের সেরা