kalerkantho

বুধবার । ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ । ১৩ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

সিপিডির নাগরিক সম্মেলন

নির্বাচনী ইশতেহার বাস্তবায়নে রাজনৈতিক দলগুলো উদাসীন

অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সিপিডির গবেষণা পরিচালক খন্দকার গোলাম মোয়াজ্জেম

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৪ আগস্ট, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নির্বাচনী ইশতেহার বাস্তবায়নে রাজনৈতিক দলগুলো উদাসীন

দেশের রাজনৈতিক দলগুলো তাদের নির্বাচনী ইশতেহার বাস্তবায়নে উদাসীন। নির্বাচনের আগে নানা ধরনের প্রতিশ্রুতি দেওয়া হলেও পরে তা খুব কমই বাস্তবায়িত হতে দেখা যায়। যদিও নির্বাচনী ইশতেহারের আইনি কোনো কাঠামো নেই। তার পরও এসব প্রতিশ্রুতির মূল্যায়ন এবং এ ব্যাপারে জবাবদিহি থাকা দরকার।

বিজ্ঞাপন

বর্তমান সরকার ২০১৮ সালে যে নির্বাচনী ইশতেহার দিয়েছিল, তার মধ্যে শিক্ষা, মানসম্মত কর্মসংস্থান, জেন্ডার সমতায় অনেকখানি পিছিয়ে আছে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষক ও খাতসংশ্লিষ্টরা। তবে তাঁরা এ-ও বলছেন, দেশে বর্তমানে একটি অন্য রকম পরিস্থিতি বিদ্যমান। এ কারণে ২০২৩ সালের জন্য সরকারকে ক্রাশ প্রগ্রাম নিতে হবে।

গতকাল শনিবার রাজধানীর একটি হোটেলে সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি) এবং জাতিসংঘ ডেমোক্রেসি ফান্ড (ইউএনডিইএফ)-এর সহযোগিতায় ‘জাতীয় উন্নয়নে অঙ্গীকার : শিক্ষা, মানসম্মত কর্মসংস্থান, জেন্ডার সমতা’ শিরোনামে দিনব্যাপী নাগরিক সম্মেলনে অংশ নিয়ে বক্তারা এসব কথা বলেন। সিপিডির নির্বাহী পরিচালক ফাহমিদা খাতুনের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান।  

নাগরিক সংলাপে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সিপিডির গবেষণা পরিচালক খন্দকার গোলাম মোয়াজ্জেম। তিনি তাঁর বক্তব্যে বলেন, ‘বাংলাদেশের প্রতিটি রাজনৈতিক দল নির্বাচনের আগে ইশতেহার ঘোষণা করে। যদিও এসব ইশতেহারের আইনি কোনো কাঠামো নেই, তার পরও এসব প্রতিশ্রুতির মূল্যায়ন এবং এ ব্যাপারে জবাবদিহি থাকা দরকার। কারণ রাজনৈতিক দলগুলো মূলত ইশতেহার দিয়েই ভোট সংগ্রহ করে। এ জন্য এটিকে আইনি ভিত্তি দেওয়া প্রয়োজন। ’

তিনি আরো বলেন, “২০১৮ সালে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ‘সমৃদ্ধির অগ্রযাত্রায় বাংলাদেশ’ শিরোনামে একটি ইশতেহার প্রকাশ করেছিল। সেখানে চারটি মাইলফলক নির্ধারণ করা হয়। এক. ২০২১ সালের আগেই মধ্য আয়ের দেশে উন্নীত হওয়া, দুই. ২০৩০ সালের মধ্যে ‘টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) বাস্তবায়ন’ অর্জন, তিন. ২০৪১ সাল নাগাদ উন্নত দেশের মর্যাদা লাভ এবং চার. ‘বদ্বীপ পরিকল্পনা’ তথা ডেল্টা প্লান-২১০০ বাস্তবায়নে অগ্রসর হওয়া। ”

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে স্থানীয় সরকার বিশেষজ্ঞ তোফায়েল আহমেদ বলেন, ‘নির্বাচনের আগ মুহূর্তে ইশতেহার দেওয়া যাবে না। তার এক বছর আগে থেকে এটি নিয়ে আলোচনা করে তারপরই নির্বাচনের আগে তা ঘোষণা করতে হবে। ’

 



সাতদিনের সেরা