kalerkantho

বুধবার । ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ । ১৩ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

জবি ছাত্রীর মোবাইল বিক্রি করে মদ খায় দুই ছিনতাইকারী

মোবাইল ফোন উদ্ধার, মূল ছিনতাইকারীসহ তিনজন গ্রেপ্তার। আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৪ আগস্ট, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রাজধানীর কারওয়ান বাজারে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) স্নাতকোত্তর শ্রেণির শিক্ষার্থী পারিশা আক্তারের (২৫) মোবাইল ফোন ছিনতাইয়ের ঘটনায় তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তারা হলো রিপন ওরফে আকাশ, রাশেদুল ইসলাম ও দোকান মালিক মো. শফিক।

মোবাইলটি চার হাজার টাকায় শফিকের কাছে বিক্রি করে রিপন ও রাশেদুল। ওই টাকা তারা এক হাজার টাকা করে নিয়ে বাকি দুই হাজার টাকায় মদ কিনে পান করে।

বিজ্ঞাপন

গতকাল বুধবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে রাজধানীর তেজগাঁও থানা কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান তেজগাঁও বিভাগের অতিরিক্ত উপকমিশনার (এডিসি) রুবাইয়াত জামান।

এর আগে গত ২১ জুলাই কারওয়ান বাজারে বাস থেকে পারিশা আক্তারের মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয় রিপন ওরফে আকাশ। তাকে ধাওয়া করলে সে (ছিনতাইকারী) মোবাইল ফোনটি আরেকজনের কাছে হাতবদল করে পালিয়ে যায়। দ্রুত বাস থেকে নেমে ছিনতাইকারীকে ধরার চেষ্টা করেন পারিশা। এ সময় দুজনকে ধরে ফেলেন তিনি। যদিও তাদের মধ্যে কেউ পারিশার মোবাইল ফোন ছিনতাইকারী ছিল না।

পুলিশ তদন্তে নেমে ঘটনাস্থল ও আশপাশ এলাকার সিসিটিভি ফুটেজ দেখে রিপনের সহযোগীকে শনাক্ত করে। তার তথ্য মতে কারওয়ান বাজারের একটি দোকান থেকে বিক্রি করে দেওয়া মোবাইল ফোনটি উদ্ধার করা হয়। সেই সঙ্গে ছিনতাইকৃত মোবাইল ফোন কেনার অপরাধে মো. শফিক নামের এক দোকান মালিককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

তেজগাঁও বিভাগের অতিরিক্ত উপকমিশনার রুবাইয়াত জামান বলেন, ছিনতাইকৃত মোবাইলটি ব্যবহার করা হয়নি। সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, রিপন মোবাইলটি ছিনিয়ে দৌড় দেয় কিন্তু তার পিছু পিছু অন্য এক যুবক দ্রুত হাঁটতে শুরু করে। পরে ওই যুবকের সন্দেহজনক গতিবিধির জের ধরে পুলিশ তদন্ত শুরু করে এবং ২৪ জুলাই তাকে কারওয়ান বাজার এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। তার নাম রাশেদুল ইসলাম।

 



সাতদিনের সেরা