kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০২২ । ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

জরায়ুমুখের ক্যান্সার নির্মূলে নতুন ভ্যাকসিন ‘প্যাপিলোভ্যাক্স’

বাজারজাত করেছে ইনসেপটা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩ আগস্ট, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বাংলাদেশে ক্যান্সারে নারীর মৃত্যুর দ্বিতীয় প্রধান কারণ জরায়ুমুখ ক্যান্সার। প্রতিবছর দেশে ১০ হাজারের বেশি নারী জরায়ুমুখ ক্যান্সারে মারা যায়। দেশের পাঁচ কোটিরও বেশি নারী এই ক্যান্সারের ঝুঁকিতে আছে। এ অবস্থায় ৯ থেকে ৪৫ বছর পর্যন্ত নারীর জরায়ুমুখের ক্যান্সার নির্মূলে ইনসেপটা বাংলাদেশ প্রথমবারের মতো নিয়ে এসেছে নতুন ভ্যাকসিন ‘প্যাপিলোভ্যাক্স’।

বিজ্ঞাপন

গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে এক অনাড়ম্বরপূর্ণ অনুষ্ঠানে ‘প্যাপিলোভ্যাক্স’-এর মোড়ক উন্মোচন করা হয়েছে। একই সঙ্গে ‘জরায়ুমুখের ক্যান্সারমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার জন্য একটি প্রচেষ্টা’ শীর্ষক এক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। সেমিনারটি আয়োজন করে ওজিএসবি (অবসটেট্রিক্যাল অ্যান্ড গাইনোক্লোজিক্যাল সোসাইটি অব বাংলাদেশ)। সহযোগিতা করেছে ইনসেপটা ভ্যাকসিন লিমিটেড। ওজিএসবি সভাপতি অধ্যাপক ফেরদৌসী বেগমের সভাপতিত্বে সেমিনারে স্বাগত বক্তব্য দেন অধ্যাপক ডা. গুলশান আরা।

সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক অধ্যাপক টি এ চৌধুরী বলেন, জরায়ুমুখ ক্যান্সারে মৃত্যুর প্রধান কারণ অসচেতনতা এবং অনেক বছরের অবহেলা। তাই বালিকা-কিশোরীদের এই ভ্যাকসিন দেওয়া খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

জাতীয় অধ্যাপক শাহলা খাতুন বলেন, ভ্যাকসিনের মাধ্যমে খুব সহজেই এই ক্যান্সারের ঝুঁকি থেকে মুক্ত থাকা যায়। এই ভ্যাকসিন রোগের আশঙ্কা অনেকটাই (৮৫ শতাংশ) কমিয়ে দেয়। এ জন্য ডাব্লিওএইচও, সিডিসি, এসিআইপি ৯ বছরের পর থেকে প্রত্যেক মেয়ের জন্য এইচপিভি ভ্যাকসিন সুপারিশ করেছে এবং বিশেষভাবে বয়সের প্রথম দিকেই দিতে উৎসাহিত করেছে। ইনসেপটা ফার্মাসিউটিক্যালসের নির্বাহী পরিচালক ডা. ই এইচ আরেফিন আহমেদ বলেন, প্রথমবারের মতো জরায়ুমুখ ক্যান্সারের ভ্যাকসিন প্যাপিলোভ্যাক্স বাজারজাত শুরু করা হয়েছে।



সাতদিনের সেরা