kalerkantho

বুধবার । ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ । ১৩ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূকে নির্যাতনের অভিযোগ

সংবাদ সম্মেলন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৫ জুলাই, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



‘বিয়ের দুই মাস পর থেকেই যৌতুকের টাকার জন্য আমার ওপর শুরু হয় অমানুষিক নির্যাতন। যখন আমি চার মাসের অন্তঃসত্ত্বা, তখন একদিন শ্বাশুড়ি আমার শরীরে গরম পানি ঢেলে দেয়। গরম খুন্তির ছেঁকা দিতেন পীঠে। মানুষ আমার চুল সুন্দর বলত বলে শ্বাশড়ি তা কেটে দেন।

বিজ্ঞাপন

তা-ও আমি মুখ বুঝে সব সহ্য করতাম, কারণ আমি স্বামীর সংসার করতে চেয়েছিলাম। ’

গতকাল সোমবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে কথাগুলো বলছিলেন চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের সাবেক অতিরিক্ত কমিশনার নির্মলেন্দু বিকাশ চক্রবর্তীর ছেলের বউ বৈশাখী ভট্টাচার্য মৌ।

বৈশাখী জানান, পারিবারিকভাবে ২০১৭ সালের ২৪ এপ্রিল ডা. কামনাশীষ চক্রবর্তী সঙ্গে তাঁর বিয়ে হয়। ‘শ্বশুরবাড়ির এসব নির্যাতনের বিষয়ে আমি চট্টগ্রাম কোতোয়ালি থানায় অভিযোগ করতে গেলেও থানা আমরা অভিযোগ নেয়নি, কারণ শ্বশুর পুলিশের বড় কর্মকর্তা। আমি প্রশাসনের দ্বারে দ্বারে গিয়ে সহযোগিতা চেয়ে পাইনি। পরে আদালতের মাধ্যমে মামলা করেছি। পরে আমি আদালতে গিয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে একটি মামলা (নং-২১৫/২০) করি। এভাবে তিন বছর কেটে যায়। বাচ্চা আর আমার কোনো দায়িত্ব আমার স্বামী নেননি। ’

তিনি আরো বলেন, ‘বর্তমানে আমি ও আমার তিন বছরের মেয়ে নিরাপত্তাহীনতায় আছি। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে আমার এবং আমার সন্তানের জীবনের নিরাপত্তা চাই। সেই সঙ্গে এর সুষ্ঠু বিচার দাবি করছি। ’

মামলা না নেওয়ার অভিযোগ প্রসঙ্গে কোতোয়ালি থানার ওসি জাহিদুল কবির কালের কণ্ঠকে বলেন, বৈশাখী ভট্টাচার্য তাঁর কাছে গত এক মাসের মধ্যে কোনো মামলার বিষয়ে আসেননি। তিনিই বরং এক মামলার আসামি।

এদিকে বৈশাখীর অভিযোগ অস্বীকার করেছেন নির্মলেন্দু বিকাশ চক্রবর্তী। তিনি উল্টো বৈশাখীর বিরুদ্ধে নির্যাতনের অভিযোগ আনেন।

 



সাতদিনের সেরা