kalerkantho

রবিবার । ১৪ আগস্ট ২০২২ । ৩০ শ্রাবণ ১৪২৯ । ১৫ মহররম ১৪৪৪

সংসদে বাজেট আলোচনা

দেশবাসীকে কৃচ্ছ্রসাধনের পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩০ জুন, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দেশবাসীকে কৃচ্ছ্রসাধনের পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর

বৈশ্বিক মূল্যস্ফীতির প্রেক্ষাপটে দেশবাসীকে কৃচ্ছ্রসাধনের পরামর্শ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, প্রত্যেককে তার নিজ নিজ জায়গায় থেকে যতটুকু সম্ভব কৃচ্ছ  সাধন করতে হবে। প্রত্যেককে নিজস্ব সঞ্চয় বাড়াতে হবে। মিতব্যয়ী হতে হবে।

বিজ্ঞাপন

কৃচ্ছ্রসাধন করে কিছু সঞ্চয় করে নিজেকে সুরক্ষিত রাখতে হবে। সব ধরনের অপ্রয়োজনীয় ব্যয়, তথা অপচয় কমাতে হবে। সব বিলাসদ্রব্য পরিহার করে শুধু প্রয়োজনীয় জিনিস কেনায় মনোযোগ দিতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী গতকাল বুধবার জাতীয় সংসদে প্রস্তাবিত ২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে এসব কথা বলেন। স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রী বলেন, অপচয় করবেন না। শুধু প্রয়োজনীয় জিনিসের দিকে মনোযোগ দিতে হবে। কথায় কথায় বিদেশে চিকিৎসা নিলে হবে না, দেশেও ভালো চিকিৎসা হয়।

বৈশ্বিক অতিমারি করোনার আরেকটি ঢেউ এসেছে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘করোনাভাইরাস আমরা সফলভাবে মোকাবেলা করতে পেরেছি। সবাইকে টিকা দিতে পেরেছি। ডাব্লিউএইচওর নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা শতভাগ টিকা দিয়েছি। জীবন-জীবিকার সুরক্ষায় যতটুকু দেওয়ার তার সবটুকুই আমরা দিতে সক্ষম হয়েছি। করোনা নতুনভাবে আবার দেখা দিয়েছে। সবাইকে বলব স্বাস্থ্য সুরক্ষা মেনে চলতে। ’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে আমরা ব্যবস্থা নিচ্ছি। তা ছাড়া প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে সমন্বয় রাখার জন্য ডলারের বিপরীতে টাকার মূল্যমান পুনর্নির্ধারণ করা হচ্ছে। এটা চলমান প্রক্রিয়া। ’ সবার জন্য পেনশন বীমা চালুর কথা উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমরা এ প্রক্রিয়ায় অনেক দূর এগিয়েছি। খুব শিগগির সংসদে আইনটি উঠবে। আমরা তা কার্যকর করতে পারব। ’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আন্তর্জাতিক বাজারে মূল্যবৃদ্ধির কারণে আগামী অর্থবছরে জ্বালানি তেল, প্রাকৃতিক গ্যাস, সার ও বিদ্যুৎ খাতে সরকারের যে ঘাটতি হবে, তা আমরা মূল্য বাড়িয়ে ভোক্তা পর্যায়ে শতভাগ চাপিয়ে দেব না, যার ফলে আগামী অর্থবছরে ভর্তুকি ব্যয় বাড়বে। ’

 



সাতদিনের সেরা