kalerkantho

বুধবার । ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ । ১৩ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

খুলনা নগর

নিরাপদ পানিবঞ্চিত নিম্ন আয়ের ৮২ শতাংশ মানুষ

► অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে বাস ৫৯ শতাংশের ► নর্দমার সঙ্গে টয়লেট সংযুক্ত ৩৮ শতাংশ

খুলনা অফিস   

২৯ জুন, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



খুলনা সিটি করপোরেশন (কেসিসি) এলাকায় নিম্ন আয়ের ৮২ শতাংশ মানুষ নিরাপদ পানিপ্রাপ্তির সুযোগবঞ্চিত, ৫৯ শতাংশ পরিবার অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে বসবাস করছে। শুধু তা-ই নয়, নগরীর ৯১ শতাংশ বর্জ্য সংগ্রহের সেবা থেকে বঞ্চিত। ৩৮ শতাংশ পরিবারের টয়লেট সরাসরি নর্দমার সঙ্গে সংযুক্ত ও ৬০ শতাংশ পরিবার খোলা জায়গায় বর্জ্য অপসারণ করে। সিটি করপোরেশনে বসবাসরত জনগোষ্ঠীর নাগরিক চাহিদা পূরণে পরিবেশগত সক্ষমতা তৈরি ও পরিকল্পিত নগর গড়ে তুলতে নেওয়া গবেষণা জরিপে এই তথ্য পাওয়া গেছে।

বিজ্ঞাপন

গবেষণা জরিপ প্রতিবেদনে সুপেয় পানি, পয়োনিষ্কাশন ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনা সেবার ২০টির মতো ত্রুটি তুলে ধরা হয়।

গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে নগরীর বিএমএ মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে বেসরকারি সংস্থা সুশীলন ও পরিবর্তন এ তথ্য উপস্থাপন করে।

সংবাদ সম্মেলনে বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন কেসিসি কাউন্সিলর ও বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটির মহাসচিব শেখ মোহাম্মদ আলী, কেসিসির কনভারসেন্সি কর্মকর্তা আব্দুল আজিজ, খুলনা ওয়াসার নির্বাহী প্রকৌশলী মো. রেজাউল ইসলাম, সুশীলনের পরামর্শক আমিনুল ইসলাম, সহকারী পরিচালক শাহিনা পারভীন, নুরুন নবী প্রিন্স, শাহীন ইসলাম।

এতে সেবার মান কম হওয়ার পেছনে ২০টির মতো কারণ চিহ্নিত করা হয়। এসবের মধ্যে রয়েছে কমিউনিটি পর্যায়ে সচেতনতার অভাব, অপর্যাপ্ত ডাস্টবিন ও ভাঙা ডাস্টবিন, নর্দমাতে সরাসরি বর্জ্য ফেলা, উপযুক্ত নকশাসহ অপর্যাপ্ত ড্রেনেজ ও পানি সরবরাহ, নিম্ন আয়ের এলাকায় অপর্যাপ্ত টয়লেট ও সুপেয় পানি, অনিয়মিত বাজার পরিষ্কারকরণ, আইনবহির্ভূত অবকাঠামো ও ভূমির ব্যবহার, নর্দমার সঙ্গে টয়লেট ও পানিপ্রবাহের সংযাগ, জনবল সংকট, স্থায়ী কমিটির অকার্যকারিতা, বর্জ্য থেকে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি উৎপাদনে বেসরকারি উদ্যোগের অভাব ইত্যাদি।



সাতদিনের সেরা