kalerkantho

রবিবার । ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ । ১০ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ২৮ সফর ১৪৪৪

নওগাঁর আত্রাই

সালিস বসিয়ে গৃহবধূকে নির্যাতন

► জরিমানার টাকা দিতে না পারায় বাড়ি থেকে ফ্রিজ নিয়ে গেছে ► মেয়ের মাকে ১০ বেত্রাঘাত, ১০ হাজার টাকা জরিমানা

আত্রাই-রানীনগর (নওগাঁ) প্রতিনিধি    

২৯ জুন, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নওগাঁর আত্রাইয়ে গ্রাম্য সালিসে এক গৃহবধূকে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। তা ছাড়া সালিসে করা জরিমানার টাকা দিতে না পারায় গৃহবধূর বাড়ি থেকে ফ্রিজ নিয়ে যান মাতবররা। এ ঘটনায় গত সোমবার রাতে আত্রাই থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ভুক্তভোগী গৃহবধূ। অভিযোগের পর রাতেই মাতবররা ফ্রিজ ফেরত দেন বলে জানা গেছে।

বিজ্ঞাপন

ভুক্তভোগী গৃহবধূ জানান, তাঁর মেয়ের ছবি বিকৃত করে উপজেলার হাতিয়াপাড়া গ্রামের এক যুবক (৩৫) কয়েকজনকে দেখান। এ ঘটনায় গত রবিবার রাতে সমাজের পক্ষ থেকে হাতিয়াপাড়া গ্রামে সালিস বসানো হয়। ওই সালিসে উল্টো তাঁকে (মেয়েটির মা) দোষারোপ করে ১০টি বেত্রাঘাত এবং ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন মাতবররা। একই সঙ্গে ওই যুবককে পাঁচটি বেত্রাঘাত এবং দুই হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। ওই সালিসে গ্রামের মাতবররা গৃহবধূর স্বামীকে দিয়ে বেত্রাঘাত করান। এতে গৃহবধূর শরীরের বেশ কয়েক জায়গায় রক্তাক্ত হয়। তা ছাড়া জরিমানার টাকা না দিতে পারায় রাতেই তাঁর ঘর থেকে ফ্রিজ নেওয়া হয়।

গৃহবধূ আরো জানান, সালিসে যেতে না চাইলেও মাতবর আব্দুস ছালামের হুকুমে স্থানীয় মেম্বার (ইউপি সদস্য) ইসমাইল হোসেন, মহিলা মেম্বার আফরুজা বেগমসহ সাত-আটজন বাড়িতে এসে জোর করে তাঁদের নিয়ে গেছে। ঘটনার সুষ্ঠু বিচার পাওয়ার জন্য সোমবার রাতে তিনি আত্রাই থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

এ ব্যাপারে ইউপি সদস্য ইসমাইল হোসেন বলেন, ‘শৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য সমাজের পক্ষ থেকে সালিস ডাকা হয়েছিল। ওই সালিসে গ্রামের প্রায় সবাই উপস্থিত ছিল। সালিসে মেয়ের মায়ের পক্ষের, যুবকের পক্ষের এবং সমাজের পক্ষের লোকজন দিয়ে জুরিবোর্ড গঠন করা হয়েছিল। জুরিবোর্ডের রায় অনুযায়ী স্বামীকে দিয়ে গৃহবধূকে শাসন হিসেবে ১০টি বেত্রাঘাতসহ ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। ওই যুবককেও পাঁচটি বেত্রাঘাত এবং দুই হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। ’

স্থানীয় মহিলা ইউপি সদস্য আফরুজা বেগম বলেন, ‘সালিসে উপস্থিত মাতবরদের নির্দেশে ইসমাইল মেম্বারসহ কয়েকজন গিয়ে গৃহবধূ ও তাঁর স্বামীকে ডেকে এনেছিলাম। সালিসের রায়ে গৃহবধূকে বেত্রাঘাতের জন্য আমাকে বলেছিল, কিন্তু আমি বেত্রাঘাত না করায় তাঁর স্বামীকে দিয়ে বেত্রাঘাত করানো হয়েছে। ’

মাতবর আব্দুস ছালামের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

আত্রাই থানার ওসি আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘সোমবার রাতে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ’



সাতদিনের সেরা