kalerkantho

শুক্রবার । ১২ আগস্ট ২০২২ । ২৮ শ্রাবণ ১৪২৯ । ১৩ মহররম ১৪৪৪

মাধবদীতে সেপটিক ট্যাংকে নেমে তিন শ্রমিকের মৃত্যু

নরসিংদী প্রতিনিধি   

২৮ জুন, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নরসিংদীর মাধবদীতে একটি মাদরাসার সেপটিক ট্যাংকে কাজ করতে নেমে তিন শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। গতকাল সোমবার মাধবদীর নূরালাপুর ইউনিয়নের গদাইর চর এলাকায় আছিয়া ইসলামিয়া আলিম মাদরাসায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। মাধবদী থানার ওসি রফিকুজ্জামান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মারা যাওয়া তিন শ্রমিক হলো নরসিংদী পৌরসভার বাসাইল এলাকার এরশাদ মিয়ার ছেলে জাহিদ মিয়া (৩০), উত্তর সাটিরপাড়া এলাকার মৃত নজরুল ইসলামের ছেলে বায়েজীদ (২২) ও মাধবদী থানার গদাইর চরের কাউছার মিয়ার ছেলে মো. আনিছ মিয়া (১৫)।

বিজ্ঞাপন

এর মধ্যে জাহিদ ও বায়েজীদ রংমিস্ত্রি।

পুলিশ জানায়, গদাইর চর এলাকায় আছিয়া ইসলামিয়া আলিম মাদরাসায় নতুন ভবনের কাজ চলছে। জাহিদ ও বায়েজীদ সকালে রঙের কাজ করতে মাদরাসায় যান। দুপুরের পর কাজ করার সময় তাঁদের একজনের রং করার ব্রাশ সেপটিক ট্যাংকে পড়ে যায়। তখন তিনি সেপটিক ট্যাংকে নামলে বিষাক্ত গ্যাসে আক্রান্ত হয়ে চিৎকার শুরু করলে তাঁকে বাঁচাতে অন্য দুজন নামলে তারাও আর উঠে আসেনি। খবর পেয়ে বিকেল ৪টার দিকে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে তাদের উদ্ধার করেন।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্যানিটারি ঠিকাদার রনি হাসান জানান, জাহিদকে বাঁচাতে গিয়ে বায়েজীদ ও আনিছ মারা গেছে। অন্য শ্রমিকরাও নামতে চেয়েছিল। পরে ফায়ার সার্ভিসে খবর দিয়ে তাদের নামতে নিষেধ করা হয়।

মাধবদী ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার মাজহারুল ইসলাম বলেন, খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে তিনজনকে উদ্ধার করা হয়। জাহিদ ও বায়েজীদ আগেই মারা যান। আনিছকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে নরসিংদী সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। মূলত বিষাক্ত গ্যাসের কারণে অক্সিজেনস্বল্পতায় তাদের মৃত্যু হয়েছে।

ওসি রাকিবুজ্জামান বলেন, সেপটিক ট্যাংকে পড়ে তিনজন মারা গেছে। ঘটনাস্থলেই দুজন আর একজনকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা গেছে। ময়নাতদন্তের জন্য তাদের লাশ নরসিংদী সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।



সাতদিনের সেরা