kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০২২ । ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

সংসদ অধিবেশন

পদ্মা সেতু হীরকের চেয়েও মূল্যবান

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৭ জুন, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



দৃঢ়তা, প্রজ্ঞা, দূরদর্শিতা ও সাহসের সঙ্গে সব ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করে পদ্মা সেতু জাতিকে উপহার দেওয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে দেশের মানুষের পক্ষ থেকে কৃতজ্ঞতা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন সরকার ও বিরোধী দলের সংসদ সদস্যরা। জাতীয় সংসদে প্রস্তাবিত বাজেটের ওপর আলোচনায় অংশ নিয়ে তাঁরা পদ্মা সেতু উদ্বোধনের জন্য প্রধানমন্ত্রীর ভূয়সী প্রশংসার পাশাপাশি পদ্মা সেতুকে হীরকের চেয়েও মূল্যবান বলে উল্লেখ করেছেন।

গতকাল রবিবার স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী এবং পরে প্যানেল সভাপতি এ বি তাজুল ইসলামের সভাপতিত্বে ওই আলোচনায় অংশ নেন সাবেক মন্ত্রী শাজাহান খান, শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম, গৃহায়ণ ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ, পরিবেশ প্রতিমন্ত্রী হাবিবুন নাহার, সরকারি দলের মাহবুবউল আলম হানিফ, সাহাদারা মান্নান, গাজী মোহাম্মদ শাহনেওয়াজ, গণফোরামের সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমেদ, বিএনপির হারুনুর রশীদ এবং বিরোধী দল জাতীয় পার্টির কাজী ফিরোজ রশীদ, মো. ফখরুল ইমাম, অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম প্রমুখ।

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শাজাহান খান বলেন, ‘আমি আজ আনন্দে আত্মহারা।

বিজ্ঞাপন

আজ আমি মাদারীপুর থেকে রওনা দিয়ে দুই ঘণ্টায় ঢাকায় এসেছি। আমি পদ্মা নদী পার হয়েছি, সময় লেগেছে মাত্র পাঁচ মিনিট। ’

কাজী ফিরোজ রশীদ বলেন, ‘পদ্মা সেতু কোনো রাজনৈতিক আইটেম নয়। এটি গোটা বাঙালি জাতির গর্ব ও অহংকারের বিষয়। এই সেতু নির্মাণের মাধ্যমে গোটা পৃথিবীকে আমাদের আর্থিক শক্তি ও সক্ষমতার বার্তা এরই মধ্যে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। এটি আমাদের সবচেয়ে বড় গৌরবের বিষয়। ’ তিনি আরো বলেন, ‘পদ্মা সেতু আমাদের কাছে হীরকের চেয়েও বেশি মূল্যবান। ’

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেন, বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার হাত ধরে দুর্বার গতিতে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। শুধু পদ্মা সেতু নয়, অনেক বিশাল বিশাল অর্জন এসেছে বঙ্গবন্ধুকন্যার হাত ধরে।

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে পদ্মা সেতুর মহান স্থপতি আখ্যায়িত করে বলেন, এই সেতু উদ্বোধনের মাধ্যমে এক নতুন দিগন্ত উন্মোচিত হয়েছে। বাংলাদেশের মানুষের সৌভাগ্য, জাতির পিতার পর শেখ হাসিনার মতো একজন ভিশনারি লিডারশিপ পেয়েছে।

গণফোরামের সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমেদ বলেন, বঙ্গবন্ধু বেঁচে থাকলে অনেক আগেই পদ্মা সেতু হতো। আজ তাঁরই কন্যার হাত ধরে সেই স্বপ্ন বাস্তবায়িত হয়েছে।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর প্রজ্ঞা, সাহস, দূরদর্শিতার মাধ্যমে দেশকে এগিয়ে নিয়ে প্রমাণ করেছেন—শেখ হাসিনা মানেই বাংলাদেশ। পদ্মা সেতু কোনো একটি রড-সিমেন্ট-কংক্রিটের স্থাপনা নয়, এটি আমাদের গর্বের, অহংকারের, সক্ষমতা এবং ষড়যন্ত্রকারীদের দাঁতভাঙা জবাব দেওয়ার সেতু। ’

প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ বলেন, মুহাম্মদ ইউনূস গং ষড়যন্ত্র করে বিশ্বব্যাংকের টাকা বন্ধ করে দিয়েছিলেন। কিন্তু বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা চ্যালেঞ্জ দিয়ে বলেছিলেন—নিজের অর্থেই পদ্মা সেতু করব। সব ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করেই পদ্মা সেতু নির্মাণ করে তিনি গোটা বিশ্বকে দেখিয়ে দিয়েছেন—বাংলাদেশ পারে, কারো কাছে মাথা নত করে না।

 



সাতদিনের সেরা