kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০২২ । ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

‘আগে ভয় পেতাম, এখন একটানে বাড়ি’

পদ্মা সেতুর কল্যাণে ২১ জেলায় সড়ক যোগাযোগে নতুন গতি

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৭ জুন, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৬ মিনিটে



‘আগে ভয় পেতাম, এখন একটানে বাড়ি’

সেতু পার হয়ে ঢাকা যাওয়ার জন্য গোপালগঞ্জ বাসস্ট্যান্ডে যাত্রীরা। ছবি : কালের কণ্ঠ

শনিবার পদ্মা সেতু উদ্বোধনের পর রবিবার ভোরে পদ্মা সেতু সাধারণ যানবাহনের জন্য উন্মুক্ত করা হয়। এরপর পাল্টে যাওয়া দৃশ্যপটে বিভিন্ন জেলা থেকে সুফলভোগী যাত্রীদের উচ্ছ্বাসসহ নানা বিষয় তুলে ধরেছেন আমাদের প্রতিনিধিরা—

সেতু পার হয়ে সেলফি তুলছেন মাদারীপুরের যুবক।      ছবি : কালের কণ্ঠ

বরিশাল : ঢাকা থেকে বাসে রওনা দিয়ে পদ্মা সেতু হয়ে মাত্র চার ঘণ্টায় বরিশালে এসেছেন আরিফ হোসেন। পদ্মা সেতু হয়ে বাড়িতে আসার জন্য আরিফ ইসলাম রবিবার ভোরে টেকনিক্যাল গিয়ে সাকুরা পবিহনের একটি বাসের টিকিট কেনেন।

বিজ্ঞাপন

বাসটি সরাসরি বরিশাল পৌঁছায় সোয়া ১০টার দিকে। গাড়ির চালক হাবিবুর রহমন জানান, পদ্মা সেতুর টোল প্লাজায় পাঁচ কিলোমিটার ধরে গাড়ির যানজট। তাই আসতে এক ঘণ্টা বিলম্ব হয়েছে।

গোপালগঞ্জ : গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া উপজেলার সৌদিপ্রবাসী এলাহি হাওলাদার। দেশে ফিরেছেন গত সপ্তাহে। রবিবার তিনি ঢাকার ফুলবাড়িয়া বাসস্ট্যান্ড থেকে সকাল ৯টা ১৫ মিনিটে বাসে উঠে দুপুর ১২টায় গোপালগঞ্জে পৌঁছান। এতে সময় লাগে মাত্র তিন ঘণ্টা। তিনি বলেন, ‘পদ্মা নদী পার হতে আমাদের দুই-আড়াই ঘণ্টা অতিরিক্ত ব্যয় হতো। মাত্র ৭ মিনিটে সেতু পার হলাম। ’

ঢাকা থেকে খুলনাগামী প্রাইভেট কারের যাত্রী মো. আজমল হোসেন বলেন, ‘পদ্মা ঘাটের ভোগান্তির কারণে ঈদে বাড়ি যেতেও ভয় পেতাম। গত ঈদও ঢাকায় করেছি। এখন প্রতিটা ঈদ বাড়িতে করতে পারব। শুধু ঈদই নয়, মাসে বা সপ্তাহে একবার আসতে পারব। ’

ঢাকা যাওয়ার জন্য যাত্রী তুলছে শরীয়তপুরের বাস।     ছবি : কালের কণ্ঠ

পটুয়াখালী : ‘ঢাকা থেকে বাসে পটুয়াখালী আসতে সময় লাগত ১৪ থেকে ১৫ ঘণ্টা। তিন থেকে ১০ ঘণ্টায় ফেরিতে পদ্মা নদী পাড়ি দিতে হতো। আজ ৭ মিনিটে পদ্মা সেতু পাড়ি দিয়েছি। পাঁচ ঘণ্টায় পটুয়াখালী পৌঁছেছি’—কথাগুলো বলেন পটুয়াখালীর বাসিন্দা মো. ফয়সাল আহমেদ।   তিনি জানান, এখন বৃহস্পতিবার অফিস করে বাড়ি আসবেন আবার রবিবার ৬টার বাসে ঢাকায় কর্মস্থলে ফিরে যাবেন।

বাগেরহাট : বাগেরহাটে ছেড়ে যাওয়া যাত্রীবাহী বাস পদ্মা সেতু পার হয়ে সোয়া তিন ঘণ্টায় ঢাকায় পৌঁছে গেছে। রবিবার সকাল ৭টা ৫ মিনিটে বলেশ্বর পরিবহনের একটি বাস যাত্রী নিয়ে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হয়। বাসটি ১০টা ২০ মিনিটে গন্তব্যস্থল ঢাকায় পৌঁছায় বলে জানান বাগেরহাট আন্ত জেলা বাস মালিক সমিতির সভাপতি শেখ নজরুল ইসলাম মন্টু।

বরগুনা : যাত্রী পরিপূর্ণ হয়ে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যায় বিভিন্ন বাস। কোনো পরিবহনেই সিট খালি ছিল না। যাত্রী আবদুর রহমান বলেন, ‘আগে লঞ্চে করে ঢাকা যেতাম। পদ্মা সেতু চালু হয়েছে সে জন্য বাসে করে ঢাকায় রওনা দিয়েছি। আগে যেখানে ঢাকা যেতে লঞ্চে ১২-১৩ ঘণ্টা লাগত, এখন আমরা ছয় ঘণ্টায় ঢাকা পৌঁছতে পারব। ’

যশোর : রবিবার সকাল সোয়া ৮টায় ঢাকার মালিবাগ থেকে পদ্মা সেতু পার হয়ে ভাঙ্গা-ফরিদপুর-মাগুরা দিয়ে যশোর হয়ে বেনাপোল গেছেন সোহাগ পরিবহনের চেয়ারকোচ চালক আবুল আব্বাস। তিনি বলেন, ‘ফেরি পার হয়ে আসতে গেলে সাধারণত যে সময় লাগে তার থেকে দুই ঘণ্টা আগে পৌঁছেছি। ’ ঢাকা থেকে সাড়ে চার ঘণ্টায় বেনাপোল যাওয়া যাবে। এতে উপকৃত হবে ভারতগামী যাত্রীরাও।

ঝালকাঠি : ঢাকা থেকে প্রথমবারের মতো পদ্মা সেতু পার হয়ে ঝালকাঠি এসেছে বিভিন্ন পরিবহন। সকাল ৮টায় ঢাকা থেকে রওনা হয়ে মাত্র চার থেকে সাড়ে চার ঘণ্টায় ঝালকাঠি আসায় খুশি যাত্রীরা। মাইক্রোবাসচালক মিরাজুল ইসলাম বলেন, ‘শনিবার সকাল ৮টায় ঢাকা থেকে রওনা করে সাড়ে ১২টার মধ্যে ঝালকাঠি পৌঁছেছি। ’

সকাল ৮টায় সায়েদাবাদ থেকে ছেড়ে দুপুর ১টায় পটুয়াখালীতে বাস।   ছবি : কালের কণ্ঠ

মাগুরা : যাত্রীদের আগ্রহ থাকলেও পদ্মা সেতু হয়ে মাগুরা-ঢাকার সরাসরি কোনো বাস সার্ভিস চালু হয়নি। তবে রুট পারমিট নিয়ে এ পথের সম্ভাবনার কথা জানিয়েছে বাস মালিক কর্তৃপক্ষ। এদিকে শহরের ঢাকা রোড বাসস্ট্যান্ডে গিয়ে দেখা গেছে, বেশ কিছু প্রাইভেট কার পদ্মা সেতু হয়ে ঢাকা যাচ্ছে। কিছু প্রাইভেট কারচালক পদ্মা সেতু দেখার জন্য সেতু পর্যন্তই ট্রিপ চালু করেছেন।

মেহেরপুর : মেহেরপুর থেকে কোনো পরিবহন পদ্মা সেতু পাড়ি না দিলেও তার সুবিধা পাওয়া শুরু হয়েছে। গত শনিবার সন্ধ্যার পর থেকে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ফেরিঘাট ফাঁকা হয়ে গেছে। ফলে এখন মাত্র সাড়ে পাঁচ ঘণ্টায় ঢাকা থেকে মেহেরপুর পৌঁছানো সম্ভব হবে বলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা বলছেন।

নড়াইল : রবিবার সকাল থেকেই বাসসহ নানা যানবাহন ছেড়ে গেছে অন্যদিনের চেয়ে বেশি। ঈগল, বিআরটিসি, হানিফ পরিবহনসহ সব পরিবহনই পদ্মা সেতুর ওপর দিয়ে গাড়ি চলাচল শুরু করেছে, যারা আগে আরিচা হয়ে ঢাকায় ঢুকত।

চুয়াডাঙ্গা : রুট পারমিট সমস্যার কারণে চুয়াডাঙ্গার কোনো বাস রবিবার পদ্মা সেতু পার হয়ে ঢাকা যায়নি। কয়েক দিন পর রুট পারমিট হলে এ সুবিধা চালু হতে পারে। এ ছাড়া পদ্মা সেতুর কারণে যানবাহনের চাপ কমায় চুয়াডাঙ্গার গাড়ি নির্বিঘ্নে ফেরি পারাপার করতে পারছে।

শরীয়তপুর : পদ্মা সেতু উদ্বোধনের পর প্রথম দিন শরীয়তপুর থেকে ছাড়া সীমিতসংখ্যক বাসে আসন না পেয়ে আক্ষেপ প্রকাশ করেছেন রাজধানীমুখী শত শত যাত্রী।

কুষ্টিয়া : পদ্মা সেতু উদ্বোধনের পরদিন গতকাল রবিবার কুষ্টিয়া থেকে কোনো বাস-ট্রাক পদ্মা সেতু হয়ে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যায়নি। কুষ্টিয়া থেকে বঙ্গবন্ধু যমুনা সেতু এবং দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া হয়ে ঢাকায় যাতায়াত করে। তবে কুষ্টিয়া থেকে যেসব বাস-ট্রাক সরাসরি চট্টগ্রাম যাতায়াত করে তারা উপকৃত হবে।

ঝিনাইদহ : ঝিনাইদহ, চুয়াডাঙ্গা ও দর্শনা এলাকার ঢাকাগামী বাস পদ্মা সেতু দিয়ে চলাচল শুরু করেনি। দৌলতদিয়া-আরিচা ফেরিঘাটে যানজট কমে যাওয়ায় এই পথেই চলাচল করছে এ অঞ্চলের পরিবহন বাসগুলো।

এ ছাড়া পদ্মা সেতুর কারণে সড়ক পরিবহনে নতুন গতি পাচ্ছে খুলনা, সাতক্ষীরা, পিরোজপুর, ভোলা, রাজবাড়ী, মাদারীপুর, ফরিদপুর ও ঝালকাঠি জেলা।

 



সাতদিনের সেরা