kalerkantho

শুক্রবার । ৭ অক্টোবর ২০২২ । ২২ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

পদ্মা সেতু

উদ্যোক্তা-ব্যবসায়ীদের বন্ধন তৈরি করবে

আমাদের পণ্য ঢাকায় দুই দিনেও পৌঁছাতে পারতাম না। এখন সর্বোচ্চ পাঁচ-ছয় ঘণ্টার মধ্যেই পণ্য নিয়ে ঢাকায় যাওয়া যাবে।তরুণ পাল, মৃিশল্পের উদ্যোক্তা, পটুয়াখালী

সজীব আহমেদ   

২৫ জুন, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



পদ্মা সেতু দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প (এসএমই) উদ্যোক্তা এবং ব্যবসায়ীদের বন্ধন তৈরি করবে। দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের উদ্যোক্তারা যেখানে ঢাকার ব্যবসায়ীদের কাছে দুই দিনেও পণ্য পৌঁছাতে পারতেন না, পদ্মা সেতু চালু হলে মাত্র চার-পাঁচ ঘণ্টার মধ্যেই এসব অঞ্চল থেকে ঢাকায় পণ্য পাঠাতে পারবেন উদ্যোক্তারা।

ফলে ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষেত্রে খুলবে নতুন দুয়ার। এসব অঞ্চলের মানুষের কর্মসংস্থান বৃদ্ধি পাবে, মানুষের আয়ও বাড়বে।

বিজ্ঞাপন

প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে উপকৃত হবে সারা দেশের মানুষ। পাশাপাশি সারা দেশের সঙ্গে ওই অঞ্চলের মানুষের সামাজিক ও অর্থনৈতিক বন্ধন সুদৃঢ় হবে। কৃষি, শিল্প ও পর্যটন খাতে হবে ব্যাপক উন্নয়ন।

জানতে চাইলে যশোর নকশিকাঁথা অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মরিয়ম নার্গিস কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘পদ্মা সেতু চালু হচ্ছে, এতে আমাদের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের মানুষেরা খুবই আনন্দিত। বিশেষ করে আমরা যাঁরা উদ্যোক্তারা আছি, তাঁরা আরো বেশি আনন্দিত। কারণ আমাদের যোগাযোগব্যবস্থার বেহাল দশার কারণে প্রতিনিয়তই আমাদের সংগ্রাম করে ব্যবসা টিকিয়ে রাখতে হয়েছে। আমি যেহেতু নকশিকাঁথা নিয়ে কাজ করছি, তাই আমাকে পুরো কাঁচামাল পণ্য কাপড়, সুতা, ট্রেসিং পেপার ও বিভিন্ন ডিজাইন তৈরির উপকরণ এলামাটি, ডাইসসহ সব কিছুই ঢাকা থেকেই সংগ্রহ করতে হয়। এগুলো দ্রুত সংগ্রহ করতে পারব। পণ্য তৈরি করে দ্রুত ঢাকায় পাঠাতে পারব। সময় বাঁচবে, খরচও কমবে। পদ্মা সেতু আমাদের অঞ্চলের উদ্যোক্তা ও ব্যবসায়ীদের মধ্যে বন্ধন তৈরি করবে। ’

একই ধরনের প্রত্যাশা পটুয়াখালীর মৃিশল্পের উদ্যোক্তা তরুণ পালের। তিনি কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘মৃিশল্পের জন্য আমাদের এলাকার উদ্যোক্তাদের পণ্য বিখ্যাত। দেশ ও বিদেশে প্রচুর চাহিদা রয়েছে। কিন্তু যোগাযোগব্যবস্থার কারণে আমরা পিছিয়ে ছিলাম। ফেরিতে ট্রাক আটকে রাখার কারণে আমাদের পণ্য ঢাকায় দুই দিনেও পৌঁছাতে পারতাম না। তখন ব্যবসায়ীদের সঙ্গে আমাদের দূরত্ব তৈরি হয়ে যেত। এখন সর্বোচ্চ পাঁচ-ছয় ঘণ্টার মধ্যেই পণ্য নিয়ে ঢাকায় যাওয়া যাবে। ’

জানতে চাইলে এমএমই ফাউন্ডেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ড. মো. মফিজুর রহমান কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘পদ্মা সেতু দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের উদ্যোক্তাদের উন্নয়ন ঘটাবে। এই অঞ্চলে আরো নতুন নতুন উদ্যোক্তা তৈরি করতে আগামী জুলাই মাসে জাতীয় সেমিনার করব গোপালগঞ্জে। নতুন উদ্যোক্তা হলে কিভাবে তাঁরা লাভবান হবেন—সেটা বুঝানোর জন্যই এই সেমিনারটি হবে। একই সঙ্গে এই অঞ্চলের উদ্যোক্তাদের বেশি পরিমাণের অর্থায়নের জন্য ব্যাংকগুলোকে উৎসাহিত করব। ’

এদিকে পদ্মা সেতু উদ্বোধনের খবরে আশার আলো দেখছেন শরীয়তপুরের বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশনের (বিসিক) উদ্যোক্তারা। এই শিল্পনগরীর উদ্যোক্তারা এরই মধ্যে ঢাকামুখী উৎপাদনের জন্য কাজ শুরু করেছেন। উদ্যোক্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, পণ্য নিয়ে ঢাকা যেতে কখনো কখনো এক দিন থেকে তিন দিনও কেটে যেত। সেতু উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে শরীয়তপুরসহ দক্ষিণাঞ্চলের সঙ্গে সড়ক যোগাযোগের ক্ষেত্রে নতুন দ্বার উন্মোচিত হচ্ছে।

শরীয়তপুর বিসিক শিল্পনগরীর কর্মকর্তা অর্ক সরকার বলেন, ‘পদ্মা সেতু চালু হলে এই শিল্পনগরীর গুরুত্ব অনেক বেড়ে যাবে। এরই মধ্যে উদ্যোক্তারা নতুন আঙ্গিকে উৎপাদন শুরু করছেন। এতে বিসিকে অনেক লোকের কর্মসংস্থান তৈরি হবে। ’



সাতদিনের সেরা