kalerkantho

বুধবার । ২৯ জুন ২০২২ । ১৫ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৮ জিলকদ ১৪৪৩

সাড়ে তিন হাত মাটিও মিলছে না

কুড়ার বাজার ইউনিয়নের প্রায় সব কবরস্থানে পানি

বিয়ানীবাজার (সিলেট) প্রতিনিধি   

২৪ জুন, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মৃত্যুর পর দাফনের জন্য প্রয়োজন মাত্র সাড়ে তিন হাত মাটি। সিলেটের বিয়ানীবাজারে বন্যার পানিতে বেশির ভাগ কবরস্থান তলিয়ে গেছে। এটুকু শুকনা মাটি পাওয়া যাচ্ছে না। যেখানেই কোদালের কোপ পড়ছে, গড়গড় করে উঠে আসছে পানি।

বিজ্ঞাপন

এ অবস্থায় লাশ দাফন করতে গিয়ে বিপাকে পড়ছে মানুষ।

বুধবার দিবাগত রাতে বিয়ানীবাজার উপজেলার কুড়ার বাজার ইউনিয়নের খশির আব্দুল্লাহপুর নয়াপাড়া গ্রামের বাসিন্দা বাহার উদ্দিন (৪০) পানিতে ডুবে মারা যান। এলাকায় যে কবরস্থান আছে, তাতে কোমর সমান পানি। পরে তাঁর লাশ দুদাশাহ মাজারে দাফন করতে গেলে বাধে বিপত্তি। যেখানেই কোদালের কোপ দেওয়া হচ্ছে, দ্রুত পানি উঠে যাচ্ছে। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর আড়াইটায় এই প্রতিবেদন লেখার সময়ও দাফনের জায়গা খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না।

বৈরাগীবাজার এলাকার বাসিন্দা মুছলিম উদ্দিন বলেন, ‘আমরা বাহার উদ্দিনের লাশ দাফনের জন্য সকাল থেকে সমস্যায় আছি। প্রথম পর্যায়ে কবর খননের লোক পাওয়া যায়নি। পরে অনেক কষ্টে এক লোক পাওয়া গেলেও সে অনেক কষ্টে বুক সমান পানি পাড়ি দিয়ে এসেছে। তার সঙ্গে এলাকার যুবকরা কবর খুঁড়তে সাহায্য করলেও কবরের জায়গা পাওয়া যাচ্ছে না। তবে কবরের জায়গা পাওয়া যাবে আশা করছি। ’

কুড়ার বাজার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তুতিউর রহমান তুতা বলেন, ‘আমার ইউনিয়নের প্রায় সব কবরস্থানে পানি। কেউ মারা গেলে এলাকাবাসীকে বেকায়দায় পড়তে হচ্ছে। তবে বৈরাগীবাজার এলাকার দুদাশাহ মাজারের কবরস্থানে কিছু জায়গায় এখনো পানি ওঠেনি। আশপাশে পানি আছে, পানি বাড়লে কী হবে জানি না। আপাতত কেউ মারা গেলে এখানে তার লাশ দাফন করা যাবে। ’

 

 



সাতদিনের সেরা