kalerkantho

সোমবার । ১৫ আগস্ট ২০২২ । ৩১ শ্রাবণ ১৪২৯ । ১৬ মহররম ১৪৪৪

মিথ্যাচার ও ষড়যন্ত্র সম্পর্কে সতর্ক থাকার আহ্বান

সংসদে প্রস্তাবিত বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৩ জুন, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



জাতীয় সংসদে প্রস্তাবিত ২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে সরকার ও বিরোধী দলের সদস্যরা বলেছেন, করোনা মোকাবেলাসহ মেগাপ্রকল্পগুলোর সফল বাস্তবায়নের মাধ্যমে সরকার দেশকে এগিয়ে নিচ্ছে। আর সরকারের এই অভূতপূর্ব উন্নয়নে দিশাহারা একটি মহল মিথ্যাচারে লিপ্ত। তারা নানামুখী ষড়যন্ত্র চালাচ্ছে। এই মিথ্যাচার ও ষড়যন্ত্র সম্পর্কে দেশবাসীকে সতর্ক থাকতে হবে।

বিজ্ঞাপন

গতকাল বুধবার জাতীয় সংসদ অধিবেশনে ওই আলোচনায় সভাপতিত্ব করেন স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী ও প্যানেল সভাপতি এ বি তাজুল ইসলাম।

আলোচনায় অংশ নিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, সারা দেশে উন্নয়ন এখন দৃশ্যমান। তাই দিশাহারা হয়ে সরকারের বিরুদ্ধে মিথ্যাচারে লিপ্ত একটি মহল। এ সম্পর্কে সতর্ক থাকতে হবে। যারা ষড়যন্ত্র ও হত্যার রাজনীতি করে তাদের প্রত্যাখ্যান করে উন্নয়নের পক্ষে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী বিএনপির সমালোচনা করে বলেন, ২০০১ সালে বিএনপি অগ্নিসন্ত্রাস করে, শিল্প-কারখানায় অগ্নিসংযোগ করেছে, এটি কিসের আলামত?

রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন বলেন, ১৯৮১ সালে বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা দেশে ফিরেছিলেন বলেই আজকের এই উন্নয়ন। তিনি দেশে ফিরেছিলেন বলেই জাতির পিতার হত্যাকাণ্ডের ও যুদ্ধাপরাধীদের বিচার হয়েছে।

সরকারি দলের আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘জননেত্রী শেখ হাসিনা আওয়ামী লীগ ও সরকারের হাল ধরার কারণে বাংলদেশ বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল। জাতীয় বাজেটের আকার বাড়ছে। বিভিন্ন খাতে বরাদ্দও বাড়ছে। তবে করোনাকালে যে সফলতা দেখিয়েছি, এই সফলতা ধরে রাখতে স্বাস্থ্য খাতে বরাদ্দ বাড়াতে হবে। ’

বিমান প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুর আলী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী প্রণোদনা দেওয়ার কারণে করোনাকালে সংকট মোকাবেলা করে বিমান লাভজনক প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে। পদ্মা সেতু, মেট্রো রেল উদ্বোধনের পর বিমানবন্দর আধুনিকায়নের কাজে শেষ হবে। আগামী বছর প্রধানমন্ত্রী তা উদ্বোধন করতে পারবেন বলে আশা করছি। ’

বিএনপির গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ বলেন, ‘আমরা প্রতিনিয়ত উন্নয়ন ও মাথাপিছু আয় বৃদ্ধির কথা শুনছি। গণতন্ত্র ও মানবাধিকারকে অবজ্ঞা করে সরকার শুধু উন্নয়নকে সামনে নিয়ে আসছে। শ্রীলঙ্কায় সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হয়েছে উন্নয়ন ভাবনা স্থিতিশীল নয়। তাই সংসদে অর্থমন্ত্রীর দেওয়া বাজেট জনকল্যাণ ও জনগণের জন্য স্বস্তিদায়ক নয়। ’

বিরোধী দল জাতীয় পার্টির নাসরিন জাহান রত্না বলেন, পদ্মা সেতুর সুফল জনগণের কাছে পৌঁছে দিতে বাজেটে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্য কমানোর উদ্যোগ নিতে হবে।

জাসদের শিরীন আখতার বলেন, সারা দেশে অবকাঠামো উন্নয়ন হলেও দেশে ধনী-দরিদ্রের বৈষম্য বাড়ছে। ধনী আরো ধনী হচ্ছে। তিনি বলেন, সাম্প্রদায়িক শক্তি ষড়যন্ত্র করছে।

এ বি তাজুল ইসলাম বলেন, করোনাকালে পৃথিবীর অনেক দেশে দুর্ভিক্ষ অবস্থা বিরাজ করছে। কিন্তু বাংলাদেশে সেই পরিস্থিতি হতে দেননি বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা।

আওয়ামী লীগের নজরুল ইসলাম বলেন, বিএনপি-জামায়াত জোট ক্ষমতায় থাকাকালে প্রতিটি খাতে লুটপাট চালিয়ে দেশ লণ্ডভণ্ড করে যায়। সেই দেশকে এগিয়ে উন্নয়নশীল কাতারে নিয়ে এসেছেন বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

 



সাতদিনের সেরা