kalerkantho

রবিবার । ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ । ১০ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ২৮ সফর ১৪৪৪

ফল পেয়ে মন ভরল শিশুদের

শুভসংঘ বসুন্ধরা গ্রুপের পৃষ্ঠপোষকতায় গাইবান্ধা জেলায় যে মানবিক উদ্যোগগুলো নিয়েছে, তা তুলনাহীন

গাইবান্ধা প্রতিনিধি   

১৬ জুন, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ফল পেয়ে মন ভরল শিশুদের

ফল খেয়ে খুশি সুবিধাবঞ্চিত শিশুরা। তাদের জন্য ফল উত্সবের আয়োজন করে কালের কণ্ঠ শুভসংঘ। গতকাল গাইবান্ধা জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে। ছবি : কালের কণ্ঠ

গাইবান্ধা জেলা শিল্পকলা একাডেমি চত্বরসংলগ্ন এলাকা গতকাল বুধবার দুপুরে ছিল শিশুদের দখলে। সুবিধাবঞ্চিত এই শিশুরা গাইবান্ধা রেলস্টেশন লাগোয়া মহল্লা থেকে দলবেঁধে এসেছিল কালের কণ্ঠ শুভসংঘের ফল উত্সবে যোগ দিতে। তাদের বয়স চার থেকে ১০ বছরের মধ্যে। শিশু সামাদ মিয়া (৯) অন্য শিশুদের একত্র করে ফিসফিস করে বলল, ‘আপোরা (আপুরা) ফল কাটতিতেছে।

বিজ্ঞাপন

আম, জাম, লেচু (লিচু), কাঁঠাল, কলা, আনারস, পেয়ারা, নটকো (লটকন), ডালিম, আঙুর, আপেল, খেজুর, তালের শাঁস দেখি আল্যাম। সব্যে আমারগরের জন্য। ’ শুনে ওদের সবার মুখে হাসি।

অনুষ্ঠান শুরু হলে সব শিশুর হাতে রঙিন বেলুন দেওয়া হয় শুভসংঘের পক্ষ থেকে। পরে ওরা মজা করে গল্প শোনে। শিশুদের সামনে কথা বলেন অতিথি কবি ও লিটলম্যাগ সম্পাদক সরোজ দেব, জেলা শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক প্রমতোষ সাহা, জেলা কালচারাল অফিসার মো. আলমগীর কবির, শুভসংঘের জেলা সহসম্পাদক সামিউল ইসলাম সাকিব, সাংস্কৃতিক সম্পাদক দেবী সাহা, ফুলছড়ি শুভসংঘ সভাপতি শিমুল হাওলাদার, উপদেষ্টা কুদ্দুস আলম, কালের কণ্ঠের জেলা প্রতিনিধি অমিতাভ দাশ হিমুন প্রমুখ। ফলের গল্প, ছোটবেলার কথা, শুভসংঘ আর বসুন্ধরা গ্রুপের মানবিক কর্মকাণ্ডের কথা বললেন বক্তারা।

পরে একসঙ্গে ফল খাওয়া শুরু করে শিশুরা। মুখভর্তি মিষ্টি আম নিয়ে আল আমিন (৯) বলে, ‘আশপাশের বড়লোকজনের বেটা-বেটিরা প্রতিদিনই ফল কেনে। আমরা সেই ১৫ দিন আগে খালি ট্যাঙ্গা (টক) পাকা আম খাচিলাম। এরপর যে দাম! কেটা কিনি দিবে! আজ সবগুল্যা একসাথে পায়্যা মন ভরি গেইল। ’

নূর আলম (১০) বলে, ‘বাড়িত আব্বো, আম্মো আর অন্য ভাই-বোনদের জন্য অর্ধেক পকেটে কর্যি নিয়া যাম। আগবা (রাগ) হন!’

কবি সরোজ দেব শিশুদের খাওয়া তদারক করছিলেন। বললেন, এই আয়োজনের কোনো তুলনা হয় না। ওদের দারিদ্র্যপীড়িত জীবন শিশুসুলভ ভালোলাগাগুলো কেড়ে নিচ্ছে। এই শিশুগুলোর অনেকে সকালে বেলুন বিক্রি করতে বের হয়। এক টুকরা ফল ওদের কাছে বিশাল প্রাপ্তি। শুভসংঘ এই আয়োজন প্রতিবছর যেন অব্যাহত রাখে।

প্রমতোষ সাহা বলেন, শুভসংঘ বসুন্ধরা গ্রুপের পৃষ্ঠপোষকতায় গাইবান্ধা জেলায় যে মানবিক উদ্যোগগুলো নিয়েছে, তা তুলনাহীন।

 

 



সাতদিনের সেরা