kalerkantho

শনিবার । ২০ আগস্ট ২০২২ । ৫ ভাদ্র ১৪২৯ । ২১ মহররম ১৪৪৪

‘যাঁরা নৌকায় ভোট দিতে নারাজ, কেন্দ্রে আসবেন না’

মধুপুরে ইউপি নির্বাচন

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি   

১২ জুন, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



টাঙ্গাইলের মধুপুর উপজেলার অরণখোলা ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন আগামী ১৫ জুন। এ নির্বাচনে যাঁরা নৌকা মার্কায় ভোট দিতে নারাজ, ভোটকেন্দ্রে আসতে তাঁদের বারণ করেছেন মধুপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও মির্জাবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাদিকুল ইসলাম। গত বুধবার বিকেলে অরণখোলা ইউনিয়নের আমলীতলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আব্দুর রহিমের নির্বাচনী সভায় তিনি এ কথা বলেন। তাঁর এই বক্তব্যের ভিডিও ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে।

বিজ্ঞাপন

ভিডিওতে সাদিকুল ইসলামকে বলতে দেখা যায়, ‘আমি আজকেও বলে দিতে চাই, ১৫ তারিখ ভোট হবে সারা দিন এবং নৌকা মার্কায় ভোট হবে। আপনারা ভোট দেবেন। যাঁরা নৌকা মার্কায় ভোট দেবেন তাঁরাই কেন্দ্রে আসবেন। আর যাঁরা নৌকায় ভোট দিতে নারাজ, দয়া করে কেন্দ্রে আসবেন না। আমরা কিন্তু আশপাশেই অবস্থান করব। এখানে দুই হাজার ৪০০ ভোট রয়েছে, যদি দুই হাজার ভোট কাস্ট হয়, আমরা দুই হাজার ভোটই পেতে চাই। ’

ভিডিওর আরেকটি অংশে সাদিকুল ইসলাম বলেন, ‘যেকোনো মূল্যে নৌকাকে আমাদের বিজয়ী করতেই হবে। এ জন্য আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, কৃষকলীগ, ছাত্রলীগ, মহিলা লীগের সর্বস্তরের নেতারা আমরা প্রতিটি কেন্দ্রে দুর্গ গড়ে তুলব। যেখানে যা প্রয়োজন আমরা সেটাই ব্যবহার করব। ’

সাদিকুল ইসলামের এই বক্তব্যে তীব্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বেশ কয়েকজন ভোটার বলেন, এমন বক্তব্যের মাধ্যমে তিনি সাধারণ ভোটারদের হুমকি দিচ্ছেন। এসব বক্তব্য শুনে ভোটারদের মনে ভীতির সৃষ্টি হচ্ছে।

স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন লস্কর আলী। তিনি জানান, এ ধরনের বক্তব্য দেওয়ায় জনমত তাঁর দিকে আসছে।

মধুপুর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা খন্দকার মোহাম্মদ আলী জানান, এ ধরনের বক্তৃতার বিষয়টি তিনি জানতে পেরেছেন। তবে এ বিষয়ে কেউ অভিযোগ করেননি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিতর্কিত বক্তব্যের বিষয়টি অস্বীকার করে সাদিকুল ইসলাম বলেন, কেউ হয়তো এডিট করে এই ভিডিও দিয়েছে।

 



সাতদিনের সেরা