kalerkantho

রবিবার । ১৪ আগস্ট ২০২২ । ৩০ শ্রাবণ ১৪২৯ । ১৫ মহররম ১৪৪৪

সবজি, ফুল, মাছের পোনায় দ্বিগুণ ব্যবসার আশা

ফিরোজ গাজী, যশোর   

৫ জুন, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সবজি, ফুল, মাছের পোনায় দ্বিগুণ ব্যবসার আশা

যশোরের গদখালী থেকে রাজধানী ঢাকায় নেওয়ার জন্য গাড়িতে সাজানো হচ্ছে ফুল। গত শুক্রবার তোলা। ছবি : কালের কণ্ঠ

দেশের সবজি, মাছের রেণু-পোনা এবং ফুলের এক বড় অংশের জোগান আসে যশোর থেকে। রাজধানী ঢাকাসহ অন্যান্য এলাকায় ট্রাকে করে এগুলো সরবরাহ করা হয়। ফেরিঘাটে যানজট বা বৈরী আবহাওয়ার কারণে অনেক সময় এগুলো যথাসময়ে গন্তব্যে পৌঁছে না। পচনশীল হওয়ায় এসব পণ্যের মান কমে যায়।

বিজ্ঞাপন

কমে দামও। লোকসানে পড়তে হয় কৃষকদের। তবে পদ্মা সেতু চালু হলে ব্যবসা দ্বিগুণ বৃদ্ধির আশা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের।  

সবজির জন্য বিখ্যাত যশোরের সাতমাইল হাট। এই হাট থেকে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় সবজি রপ্তানি হয়। শুক্রবার এ হাটে কথা হয় সবজি ব্যবসায়ী মোহাম্মদ নিশাতের সঙ্গে। ছয় বছর ধরে এ হাট থেকে সবজি কিনে তিনি রাজধানীতে পাঠান। পদ্মা সেতু চালু হওয়ার খবরে তিনি উচ্ছ্বসিত। বললেন, ‘সবজি ঢাকায় পাঠানোর সময় চিন্তায় থাকি সময়মতো ট্রাকের ফেরিঘাট পার হওয়া নিয়ে। কারণ সময়মতো ফেরি পার হতে না পারলে সঠিক সময়ে ঢাকার আড়তে সবজি পৌঁছাবে না। এতে সবজির মান কমে যাবে। দামও কম হবে। এমনকি প্রাকৃতিক দুর্যোগ হলে ফেরি বন্ধ থাকে। সে সময় আরো বিড়ম্বনায় পড়তে হয়। দেরির কারণে সবজি বাসি হয়ে দাম তিন ভাগের এক ভাগে নেমে আসে। ’  তিনি বললেন, ‘ছয় বছরে অন্তত ১২-১৩ বার এমন বিড়ম্বনায় আমার অনেক টাকা ক্ষতি হয়েছে। তবে পদ্মা সেতু চালু হলে আমাদের আর এ সমস্যা থাকবে না। সময়মতো সবজি পাঠাতে পারবো। তাতে ক্ষতির আশঙ্কা কমে যাবে। ’

যশোর জেলা মত্স্য হ্যাচারি মালিক সমিতির সভাপতি ফিরোজ খান বলেন, ‘চাহিদার ৫০ শতাংশর বেশি রেণু-পোনা উত্পাদন হয় যশোরে। পরিবহনের দেরির কারণে ৩০ শতাংশ পোনা মারা যেত। পদ্মা সেতু চালু হলে আমরা স্বল্প সময়ে পোনা নির্দিষ্ট স্থানে পৌঁছাতে পারব। এ ছাড়া আমরা দ্রুত সময়ের মধ্যে পোনা পৌঁছাতে পারব। এতে আমাদের ব্যবসা দ্বিগুণ হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। ’

বাংলাদেশ ফ্লাওয়ার সোসাইটির সভাপতি আব্দুর রহিম বলেন, ‘আমাদের উত্পাদিত ফুল ঢাকা ছাড়াও চট্টগ্রামে যায়।   অমনক সময় ফেরিঘাটে বিলম্বের কারণে ফুল নষ্ট হয়ে যেত। পদ্মা সেতু চালু হলে সেটা আর হবে না। দ্রুত ফুল পাঠাতে পারলে ফুলটাও ভালো থাকবে। এতে দামটাও বেশি পাওয়া যাবে। ফুল বিদেশে রপ্তানি সহজ হবে। এতে ফুল চাষিরাও উপকৃত হবেন। ’ জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর যশোরের সদ্যোবিদায়ি ভারপ্রাপ্ত উপপরিচালক দীপংকর দাস বলেন, রবি, খরিপ-১ ও খরিপ-২ মৌসুম মিলিয়ে যশোর জেলায় ৪২ হাজার ৫০০ হেক্টর জমিতে সবজি উত্পাদন হয়। স্থানীয় চাহিদা মেটানোর পর বিপুল পরিমাণ সবজি রাজধানী ঢাকাসহ পদ্মার ওপারে বিভিন্ন জেলায় যায়। ফেরিঘাটে দেরির কারণে ২০ শতাংশ সবজি নষ্ট হয়। সেতু চালু হলে সবজি নষ্ট হওয়ার হাত থেকে বাঁচবে।

 



সাতদিনের সেরা