kalerkantho

সোমবার । ১৫ আগস্ট ২০২২ । ৩১ শ্রাবণ ১৪২৯ । ১৬ মহররম ১৪৪৪

দেশে দেড় কোটি মানুষ থ্যালাসেমিয়ার বাহক

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৭ মে, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দেশে শতকরা ১০ থেকে ১২ ভাগ মানুষ থ্যালাসেমিয়া ও হিমোগ্লোবিন ‘ই’র বাহক। অর্থাত্ দেড় কোটি মানুষ থ্যালাসেমিয়া রোগের জিন বহন করছে। বিভিন্ন গবেষণা থেকে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে বলা হয়, দেশে প্রতিবছর আট থেকে ১৫ হাজার শিশু থ্যালাসেমিয়া রোগ নিয়ে জন্ম নেয়।

গতকাল বৃহস্পতিবার ‘বিশ্ব থ্যালসেমিয়াস দিবস ২০২২’ উপলক্ষে বাংলাদেশ থ্যালাসেমিয়া সমিতি ও হেমাটোকেয়ারের যৌথ উদ্যোগে ‘থ্যালাসেমিয়া প্রতিরোধ : জাতীয় পরিকল্পনায় বাহক নির্ণয়ের গুরুত্ব’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে এসব কথা জানানো হয়।

বিজ্ঞাপন

এবার এ দিবসের প্রতিপাদ্য ‘থ্যালাসেমিয়া : নিজে জানি, যত্নবান হই এবং অপরকে সচেতন করি। ’ ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন অব বাংলাদেশ অডিটরিয়ামে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। তিনি অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, জনস্বাস্থ্য প্রেক্ষাপটে বাংলাদেশের জন্য থ্যালাসেমিয়া একটি গুরুতর সমস্যা। এটি মূলত জিনগত ও জন্মগত একটি রক্তশূন্যতাজনিত রোগ। আক্রান্ত রোগীকে সারা জীবন চিকিত্সার ওপর নির্ভরশীল থাকতে হয়।

তবে রক্তের হিমোগ্লোবিন ইলেকট্রফরেসিস পরীক্ষার মাধ্যমে সহজেই এর বাহক নির্ণয় করা যায়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বলেন, ‘থ্যালাসেমিয়ামুক্ত বাংলাদেশ গড়তে হলে বাহক নির্ণয়ের কোনো বিকল্প নেই। আমি সাধুবাদ জানাই বাংলাদেশ থ্যালসেমিয়া সমিতি ও হেমাটোকেয়ারকে যে ইয়ুথ ক্লাব অব বাংলাদেশের তরুণদের সঙ্গে নিয়ে তাদের এই কর্মযজ্ঞ শুরু করার জন্য। ’



সাতদিনের সেরা