kalerkantho

বুধবার । ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ । ১৩ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

প্রার্থিতা প্রত্যাহার করে নিলেন ইমরান

কুমিল্লা সিটি নির্বাচন

আবদুর রহমান, কুমিল্লা   

২৭ মে, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কুমিল্লা সিটি করপোরেশন (কুসিক) নির্বাচন থেকে অবশেষে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) প্রার্থী পারভেজ খান ইমরান। একই সঙ্গে তিনি নৌকার প্রার্থী আরফানুল হক রিফাতকে সমর্থন জানিয়েছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টার দিকে কুমিল্লা চেম্বার অব কমার্স মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন ইমরান।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘আমি নিজের ইচ্ছায় নির্বাচনে আসিনি।

বিজ্ঞাপন

আমার নেতাকর্মীদের কারণে এবং কুমিল্লা সিটির ২৭টি ওয়ার্ডের মানুষের দিকে চেয়ে নির্বাচনে এসেছি। তারা অতিষ্ঠ হয়ে এখন পরিবর্তন চায়। আমার নির্বাচনের সব প্রস্তুতি ছিল। কিন্তু আমরা সবাই বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার রাজনীতি করি। আমরা নৌকার বিরুদ্ধে যেতে পারি না। নেত্রীর নির্দেশ অমান্য করার মতো সাহস আমার নেই। তাই নেত্রীর নির্দেশে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালাম। আমি আমার সব নেতাকর্মীকে বলব, আপনারা নৌকার পক্ষে কাজ শুরু করুন। আমিও প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে নৌকার পক্ষে মাঠে নেমেছি। কারণ নৌকা কোনো ব্যক্তির না, নৌকা বঙ্গবন্ধুর প্রতীক, নৌকা জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রতীক। ’

তিনি বলেন, ‘দলের নির্দেশে নির্বাচন থেকে সরি দাঁড়িয়েছি। অথচ যারা নৌকা পেয়েছে, তারা নির্বাচন পরিচালনা কমিটি করেছে। সেখানে আমাদের কোনো নেতাকর্মীর ঠাঁই হয়নি। তারা আমাকে ডাকুক বা না ডাকুক, আমি এবং আমার নেতাকর্মীরা নৌকার পক্ষে মাঠে আছে। ’

ইমরান কুমিল্লার বর্ষীয়ান আওয়ামী লীগ নেতা ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ঠ কর্মী প্রয়াত অধ্যক্ষ আফজল খানের ছেলে। কুমিল্লা চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি ইমরান কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা উপকমিটির সদস্য।

ইমরানের প্রার্থিতা প্রত্যাহারে পাল্টে গেছে ভোটের হিসাব

কুমিল্লা সিটি করপোরেশন (কুসিক) নির্বাচনে ভোটের হিসাব পাল্টে যেতে শুরু করেছে। ইমরানের প্রার্থিতা প্রত্যাহারের পর নগরীর বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মী ও সাধারণ ভোটারটা নতুন করে কষতে শুরু করেছেন ভোটের অঙ্ক।

নগরীর টমছম ব্রিজ এলাকার আওয়ামী লীগ কর্মী মনির হোসেন বলেন, ‘ইমরান মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নেওয়ায় রিফাতই এখন মাঠে সুবিধাজনক অবস্থানে আছেন। কারণ বিএনপিপন্থী দুই প্রার্থী হেভিওয়েট। তাঁরা দুজনই বিএনপির ভোট কাটবেন। এই ফাঁকে রিফাতের মেয়র হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকবে। ’



সাতদিনের সেরা