kalerkantho

বুধবার । ২৯ জুন ২০২২ । ১৫ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৮ জিলকদ ১৪৪৩

জলবায়ু সংকট থেকে মনোযোগ সরতে দিতে পারি না

ঘানার কাছে সিভিএফের দায়িত্ব হস্তান্তর প্রধানমন্ত্রীর

বাসস   

২৬ মে, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



জলবায়ু সংকট থেকে মনোযোগ সরতে দিতে পারি না

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে গতকাল ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ‘গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়’ এবং ‘রাজউক’ প্রস্তাবিত বিভিন্ন প্রকল্পের স্থাপত্য-নকশার উপস্থাপনা পর্যবেক্ষণ করেন। ছবি : পিআইডি

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘চলমান ভূ-রাজনৈতিক উত্তেজনা সত্ত্বেও আমরা বিশ্বকে জলবায়ু সংকট থেকে মনোযোগ সরিয়ে নিতে দিতে পারি না। ক্লাইমেট ভালনারেবল ফোরামের (সিভিএফ) সদস্য দেশগুলোর দেড় শ কোটি মানুষ জলবায়ু পরিবর্তনের জরুরি অবস্থার মুখে পড়েছে। প্যারিস চুক্তি অনুযায়ী উন্নত দেশগুলোকে এই খাতে অর্থায়ন ও প্রযুক্তি বিনিময়ে তাদের দেওয়া প্রতিশ্রুতি পূরণ করতে হবে। ’

প্রধানমন্ত্রী গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় বাংলাদেশের কাছ থেকে ঘানার কাছে সিভিএফ সভাপতির দায়িত্ব হস্তান্তর অনুষ্ঠানে দেওয়া ভাষণে এ কথা বলেন।

বিজ্ঞাপন

প্রধানমন্ত্রী তাঁর সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি অংশ নিয়ে দায়িত্বভার হস্তান্তর করেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের সভাপতিত্বে সিভিএফ জলবায়ু পরিবর্তনে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর জন্য একটি যথার্থ কণ্ঠস্বর হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে। আন্তর্জাতিক জলবায়ু পরিমণ্ডলে এখন সিভিএফের একটি উল্লেখযোগ্য উপস্থিতি রয়েছে। বাংলাদেশের সভাপতিত্বে সিভিএফের সদস্য পদ বৃদ্ধিই এর প্রমাণ।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশ ঘানার কাছে সিভিএফ প্রেসিডেন্সি হস্তান্তর করতে পেরে অত্যন্ত আনন্দিত। আমরা সিভিএফের ট্রেডমার্ক নৈতিক শক্তি এবং যুক্তিপূর্ণ পরামর্শ দিয়ে আমাদের যেসব দাবি পূরণ হয়নি, ঘানার নেতৃত্বে সেগুলোর জন্য চাপ দিতে থাকব। ’

২০২০ সালে বাংলাদেশ দ্বিতীয়বারের মতো সিভিএফের সভাপতিত্ব গ্রহণ করেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমরা কভিড-১৯ মহামারির মধ্যেও ফোরামের কাজ পরিচালনা করতে পেরেছি। আমরা স্বস্তি বোধ করি যে আমরা আমাদের বেশির ভাগ উদ্দেশ্যসহ আরো অনেক কিছু অর্জন করতে পেরেছি। শুরু থেকেই আমাদের প্রেসিডেন্সি কপ২৬ ফলাফলের ওপর দৃষ্টি নিবদ্ধ রেখেছিল। ’ তিনি বলেন, ‘মহামারি থাকা সত্ত্বেও আমরা জলবায়ু সংকটের দিকে বিশ্বের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছি এবং দেশগুলোর জন্য তাদের জলবায়ু উচ্চাকাঙ্ক্ষা বাড়াতে মিডনাইট সারভাইভাল ডেডলাইন চালু করেছি। ’

শেখ হাসিনা বলেন, তাঁরা ২০২১ সালে ক্লাইমেট ভালনারেবলস ফিন্যান্স সামিট আয়োজন করেছিলেন, যা পরবর্তী পাঁচ বছরে ১০০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার জলবায়ু অর্থায়নের জন্য একটি ডেলিভারি পরিকল্পনার জন্য চাপ দেয়।

 



সাতদিনের সেরা