kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৮ জুন ২০২২ । ১৪ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৭ জিলকদ ১৪৪৩

শত বছর পরেও প্রাসঙ্গিক প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদার

সালেহ ফুয়াদ   

২৪ মে, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শত বছর পরেও প্রাসঙ্গিক প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদার

প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদা

প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদার ছিলেন একজন বিপ্লবী নারী। ১৯১১ সালে চট্টগ্রামের এক মধ্যবিত্ত পরিবারে জন্ম নেওয়া প্রীতিলতা ব্রিটিশ ভারতে স্বাধীনতাসংগ্রামী মাস্টারদা সূর্য সেনের ঘনিষ্ঠ সহযোদ্ধা ছিলেন। ব্রিটিশদের মাস্টারদার দেখানো পথে সশস্ত্র পন্থার সংগ্রাম তাঁকে এই ভূখণ্ডের প্রথম আত্মোৎসর্গকারী নারী হিসেবে চিহ্নিত করে।

বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরের সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে ‘প্রীতিলতা : শতবর্ষ পরেও এত প্রাসঙ্গিক’ শীর্ষক সেমিনার ও আলোচনাসভার আয়োজন করে।

বিজ্ঞাপন

ওই আলোচনাসভায় বক্তারা ওই সব কথা বলেন। জাদুঘরের বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সভাপতি অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিকের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ। এতে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বিশিষ্ট সাংবাদিক অজয় দাশগুপ্ত এবং আলোচনায় অংশ নেন ইতিহাসবিদ অধ্যাপক ড. সোনিয়া নিশাত আমিন।

প্রীতিলতা ১৯৩২ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর পাহাড়তলীতে ইউরোপিয়ান ক্লাব আক্রমণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। ক্লাবে ‘কুকুর ও ভারতীয়দের প্রবেশ নিষিদ্ধ’—এমন কথা তাঁকে বিক্ষুব্ধ করে তোলে। ক্লাব আক্রমণ করতে গিয়ে গুলিবিদ্ধ হলে তাৎক্ষণিকভাবে পটাসিয়াম সায়ানাইড খেয়ে আত্মোৎসর্গ করেন তিনি। তাঁর সেই আত্মত্যাগ আজও প্রাসঙ্গিক।

অজয় দাশগুপ্ত তাঁর প্রবন্ধে প্রীতিলতার জীবন ও সংগ্রাম নিয়ে বিশদ আলোচনা করেন। তিনি বলেন, ‘জন্মের ১১১ বছর পর এবং প্রয়াণের ৯০ বছর পর আজও প্রীতিলতা আমাদের জীবনে সমান প্রাসঙ্গিক। উপনিবেশবাদের বিরুদ্ধে তাঁর যে সংগ্রাম ছিল, সেগুলো ছাড়াও একজন নারী হিসেবে তিনি সমাজের অন্যান্য ক্ষেত্রেও লড়াই করেছেন। একজন প্রতিবাদী প্রীতিলতা নারী নির্যাতন ও অনাচারের বিরুদ্ধেও প্রাসঙ্গিক। আজ থেকে শত বছর আগেও তিনি বাল্যবিবাহ মেনে নেননি। অথচ এই সব সমস্যা আজও প্রকট। ’



সাতদিনের সেরা