kalerkantho

শনিবার । ১৩ আগস্ট ২০২২ । ২৯ শ্রাবণ ১৪২৯ । ১৪ মহররম ১৪৪৪  

ওয়াকিটকির অবৈধ ব্যবসা, গ্রেপ্তার ২

ওয়াকিটকি সেট ব্যবহার করে ভুয়া ডিবি পরিচয়ে অপরাধ কর্মকাণ্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৪ মে, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



 

 

 

 

 

রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে অবৈধ ওয়াকিটকি সেট বিক্রয়কারী চক্রের প্রধানসহ দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে র্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র্যাব)। এ সময় ১৬৮টি ওয়াকিটকি সেট ও বিভিন্ন যন্ত্রাংশ উদ্ধার করা হয়।

গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা হলেন অলেফিল ট্রেড করপোরেশন নামের প্রতিষ্ঠানের মালিক আব্দুল্লাহ আল সাব্বির (৩৩) এবং তাঁর সহযোগী মো. আল মামুন (২৭)। রবিবার রাতে রাজধানীর মোহাম্মদপুর ও গুলিস্তানের স্টেডিয়াম মার্কেট এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়।

বিজ্ঞাপন

গতকাল সোমবার রাজধানীর কারওয়ান বাজারে র্যাব মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান র্যাব-৩-এর অধিনায়ক (সিও) লেফটেন্যান্ট কর্নেল আরিফ মহিউদ্দিন আহমেদ। তিনি বলেন, চক্রটি দেশে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটাতে এবং অধিক মুনাফা লাভের জন্য অবৈধ ওয়াকিটকি মজুদ ও বিক্রি করে আসছিল।

আরিফ মহিউদ্দিন বলেন, কিছু অসাধু ব্যবসায়ী বেশি লাভের আশায় অবৈধভাবে অপরাধীদের কাছে কালো ওয়াকিটকি সেট দীর্ঘদিন ধরে বিক্রি করে আসছেন। কিন্তু বিটিআরসির নির্দেশনা অনুযায়ী, সরকারি প্রতিষ্ঠান ছাড়া অন্য কোনো প্রতিষ্ঠান বা ব্যক্তির এই ওয়াকিটকি সেট ব্যবহার করা দণ্ডনীয় অপরাধ। এরই ধারাবাহিকতায় যৌথ অভিযান পরিচালনা করে দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাঁদের কাছ থেকে ১৬৮টি ওয়াকিটকি সেট, ওয়াকিটকির ৩৫টি ব্যাটারি, ৩২টি চার্জার, ৬৩টি অ্যান্টেনা, মাউথ স্পিকার ছয়টি এবং ছয়টি ব্যাক ক্লিপ জব্দ করা হয়।  

আরিফ মহিউদ্দিন বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা গেছে, গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা তাঁদের অলেফিল ট্রেড করপোরেশনের ওয়েবসাইট ও ফেসবুক পেজের মাধ্যমে দীর্ঘদিন ধরে অবৈধভাবে বেতারযন্ত্র ওয়াকিটকি সেট মজুদ করে বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের কাছে বিক্রি করে আসছিলেন। কিন্তু তাঁদের কাছ থেকে উদ্ধার করা এসব ওয়াকিটকি ও যন্ত্রাংশ ব্যবহারসংক্রান্ত লাইসেন্স ও কারিগরি গ্রহণযোগ্যতা সংক্রান্ত সনদ বা কোনো ধরনের বৈধ কাগজপত্র পাওয়া যায়নি।

 



সাতদিনের সেরা