kalerkantho

সোমবার । ১৫ আগস্ট ২০২২ । ৩১ শ্রাবণ ১৪২৯ । ১৬ মহররম ১৪৪৪

৭৫তম বিশ্ব স্বাস্থ্য অ্যাসেম্বলিতে প্রধানমন্ত্রী

ভবিষ্যত্ মহামারি মোকাবেলায় বৈশ্বিক চুক্তির আহ্বান

বাসস   

২৩ মে, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভবিষ্যত্ মহামারি মোকাবেলায় বিশ্বসম্প্রদায়কে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘ভবিষ্যত্ মহামারি মোকাবেলার লক্ষ্যে অন্তর্ভুক্তিমূলক ও ন্যায়সংগত সাড়া প্রদানের জন্য আমাদের অবশ্যই মহামারি চুক্তিতে পৌঁছতে কাজ করতে হবে। ’

৭৫তম বিশ্ব স্বাস্থ্য অ্যাসেম্বলির উচ্চ পর্যায়ের অধিবেশনে সম্প্রচারিত একটি ভিডিও বিবৃতিতে তিনি এ কথা বলেন। সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় গতকাল রবিবার এই অ্যাসেম্বলি শুরু হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

কভিড-১৯ মহামারি শুরুর পর এটাই প্রথম ইন-পারসন স্বাস্থ্যবিষয়ক সমাবেশ। আগামী মে পর্যন্ত অ্যাসেম্বলি চলবে।

শেখ হাসিনা বলেন, লাখ লাখ মানুষকে টিকাদানের প্রচেষ্টার বাইরে রেখে তারা টেকসইভাবে পরিস্থিতি কাটিয়ে ওঠা নিশ্চিত করতে পারেনি। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের মতো উন্নয়নশীল দেশে ভ্যাকসিন উত্পাদন বাড়াতে প্রযুক্তি ও কারিগরি জ্ঞান শেয়ার করা দরকার। ’ তিনি বলেন, কভিড-১৯ মহামারি এখনো সারা বিশ্বে জীবন ও জীবিকার ওপর ব্যাপক প্রভাব ফেলছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে তাঁর সরকার স্বাস্থ্যসেবা, আর্থিক ও সামাজিক নিরাপত্তা ব্যবস্থার সমন্বয়ের মাধ্যমে মহামারির হুমকি মোকাবেলা করতে সক্ষম হয়েছে। তিনি বলেন, ‘আমরা ২৩ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ব্যয়সাপেক্ষ ২৮টি উদ্দীপনা প্যাকেজ ঘোষণা করেছি, যা আমাদের জিডিপির প্রায় ৬.৩ শতাংশ। আমরা প্রায় ৪০ মিলিয়ন ঝুঁকিপূর্ণ মানুষকে নগদ ও অন্যান্য সহায়তা দিয়েছি। আমরা আমাদের জনগণকে বিনা মূল্যে ভ্যাকসিন সরবরাহ করেছি। ’ বাংলাদেশ মিয়ানমার থেকে জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের জন্য নির্মিত সবচেয়ে ঘনবসতিপূর্ণ আশ্রয়শিবিরে মহামারি নিয়ন্ত্রণ করতে সক্ষম হয়েছে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বিশ্বসম্প্রদায়কে অবশ্যই ব্যাধির চাপের ওপর জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবের বিষয়ে বাড়তি মনোযোগ দিতে হবে। উন্নয়নশীল দেশগুলোতে অসংক্রামক রোগের বিস্তারের বিষয়ে আমাদের দৃষ্টি নিবদ্ধ রাখতে হবে। প্রধানমন্ত্রী পুনর্ব্যক্ত করেন যে ক্যান্সার ও ডায়াবেটিস রোগের বিষয়ে গবেষণা ও চিকিত্সালাভের সুবিধার জন্য সবাইকে আরো বিনিয়োগ করতে হবে।

তিনি আরো বলেন, ‘বাংলাদেশ জনস্বাস্থ্য ও কূটনীতির জন্য আমাদের অগ্রাধিকারের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে তার ভূমিকা পালন করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। ’

ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাখোঁ, কেনিয়া, বতসোয়ানা ও ক্রোয়েশিয়া প্রেসিডেন্টরা, ইকুয়েডরের ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং জাতিসংঘ মহাসচিব এ সময় বক্তৃতা করেন।

 



সাতদিনের সেরা