kalerkantho

সোমবার । ১৫ আগস্ট ২০২২ । ৩১ শ্রাবণ ১৪২৯ । ১৬ মহররম ১৪৪৪

হজ ফ্লাইট শুরু নিয়ে ফের অনিশ্চয়তা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২০ মে, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী ৩১ মে হজ ফ্লাইট পরিচালনা নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। এখনো ফ্লাইটের স্লট চূড়ান্ত হয়নি, শেষ হয়নি হজযাত্রীদের নিবন্ধনও। হজ এজেন্সিজ অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ বলছে, এ অবস্থায় নির্ধারিত সময়ে ফ্লাইট শুরু সম্ভব নয়। অন্যদিকে চেষ্টা চালালেও কিছুটা ঘাটতির কথা বলছে বিমান।

বিজ্ঞাপন

হজ প্যাকেজ ঘোষণা নিয়েও একই রকম অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছিল।

সূত্র জানায়, হজযাত্রার আগে যাত্রীদের প্রাক-নিবন্ধন, এজেন্সি-এজেন্সি সমন্ব্বয়, মোয়াল্লিম নির্বাচন, সৌদি আরবে বাড়িভাড়া, পরিবহন ও খাবারের ব্যবস্থা করতে হয়। এরপর ভিসা ও হজযাত্রা শুরু হয়। এই প্রক্রিয়া চূড়ান্ত না হওয়ার কারণেই ৩১ মে থেকে হজযাত্রা কোনোভাবেই সম্ভব হবে না বলে আশঙ্কা করছে হাব।

হাব সভাপতি এম শাহাদাত হোসাইন তসলিম বলেন, হজযাত্রার বিশাল প্রক্রিয়া এক মাস আগে ঘোষণা দিয়ে সম্পন্ন করা সম্ভব নয়। তাই বিষয়টি চিঠি দিয়ে ধর্ম মন্ত্রণালয়কে জানানো হয়েছে। কিন্তু তেমন সাড়া পাচ্ছি না। ধর্ম মন্ত্রণালয় ওই দিনই হজযাত্রার ফ্লাইট উদ্বোধন করতে চায়।

গত ২৭ এপ্রিল সচিবালয়ে চলতি বছর হজ ব্যবস্থাপনা নিয়ে সমন্ব্বয় সভা করে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়। ওই বৈঠকে আগামী ৩১ মে থেকে হজ ফ্লাইট শুরুর ঘোষণা দেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী। তাঁর ঘোষণা অনুযায়ী, এবার দুটি ৭৭৭ বিমানের নিবেদিত ফ্লাইটের মাধ্যমে হজযাত্রী পরিবহন করা হবে। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস ৭৫টি ফ্লাইট পরিচালনা করবে। এর মাধ্যমে ৩১ হাজার হজযাত্রী পরিবহন করা হবে। অন্য যাত্রীদের সৌদি এয়ারলাইনস বহন করবে।

হজযাত্রী পরিবহনে নতুন ক্যারিয়ার হিসেবে সৌদি আরবের এয়ারলাইনস ফ্লাইনাসকে অনুমোদন দিয়েছে বাংলাদেশের বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক)। ফলে চলতি বছর বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস ও সৌদি এয়ারলাইনসের পাশাপাশি ফ্লাইনাসও হজযাত্রী পরিবহন করবে। চলতি বছর বাংলাদেশ থেকে ৫৭ হাজার ৮৫৬ জন হজে যেতে পারবেন।



সাতদিনের সেরা