kalerkantho

শুক্রবার । ১৯ আগস্ট ২০২২ । ৪ ভাদ্র ১৪২৯ । ২০ মহররম ১৪৪৪

ঝালকাঠিতে বিএনপির সমাবেশে যুবলীগ-ছাত্রলীগের হামলা

নীলফামারীতে বিএনপির মিছিলে পুলিশের বাধা

ঝালকাঠি ও নীলফামারী প্রতিনিধি   

১৫ মে, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ঝালকাঠিতে বিএনপির বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশে যুবলীগ ও ছাত্রলীগের হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ সময় জেলা বিএনপির আহ্বায়ক ও সদস্যসচিবসহ ১১ জন নেতাকর্মী আহত হয়। পুলিশ সমাবেশ থেকে জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সহসভাপতি বাচ্চু হাসান খানকে আটক করে। গতকাল শনিবার সকাল ১১টার দিকে শহরের মধ্যচাঁদকাঠি জেলা বিএনপির কার্যালয়ের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

বিজ্ঞাপন

জেলা বিএনপির সদস্যসচিব অ্যাডভোকেট শাহাদাত হোসেন অভিযোগ করেন, কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে ঝালকাঠি জেলা বিএনপি, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা দলীয় কার্যালয়ের সামনে সমবেত হয়ে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ শুরু করে। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দেন কেন্দ্রীয় বিএনপির কার্যনির্বাহী কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাবেক এমপি অ্যাডভোকেট বিলকিস জাহান শিরিন। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে নেতাকর্মীদের সরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা চালায়। এ সময় যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা এসে বিএনপি নেতাকর্মীদের ওপর হামলা চালায়। এতে ছত্রভঙ্গ হয়ে যায় সমাবেশ। পুলিশ সমাবেশ থেকে জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সহসভাপতি বাচ্চু হাসান খানকে আটক করে। পরে পুলিশ পাহারায় বিএনপির কেন্দ্রীয় নেত্রী বিলকিস জাহান শিরিনকে দলীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়। হামলায় বিএনপির ১১ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছে বলে দলীয় সূত্রে দাবি করা হয়।

বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাবেক এমপি অ্যাডভোকেট বিলকিস জাহান শিরিন বলেন, ‘একদিকে সারা দেশে আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসীরা নেতাকর্মীদের ওপর হামলা চালাচ্ছে, অন্যদিকে পুলিশ নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার করছে। এতে আজ অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে বিএনপির পাশাপাশি সব মানুষ। আজ প্রতিরোধের সময় এসেছে। এখন থেকে কোনো অন্যায় সহ্য করা হবে না। জেল, জুলুম, হুলিয়ার ভয় নেই। ’ আওয়ামী লীগের দিন শেষ হয়ে আসছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

ঝালকাঠি থানার ওসি মো. খলিলুর রহমান জানান, পরিস্থিতি সামাল দিতে একজনকে আটক করা হয়েছে। দুই পক্ষকেই ঘটনাস্থল থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

এদিকে বিএনপিসহ বিরোধী নেতাকর্মীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে নীলফামারীতে মিছিলে বাধা পেয়েও সমাবেশ করেছে বিএনপি। শনিবার দুপুর ১২টার দিকে জেলা শহরের পৌর সুপার মার্কেটের দলীয় কার্যালয় থেকে জেলা বিএনপির উদ্যোগে একটি বিক্ষোভ মিছিল প্রধান সড়কে ওঠার চেষ্টাকালে পুলিশ বাধা দেয়। বাধা পেয়ে কার্যালয়ের সামনে সমাবেশে মিলিত হয়।

এ সময় জেলা বিএনপির সভাপতি আলমগীর সরকারের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য সাবেক এমপি অধ্যক্ষ সোহরাব উদ্দিন, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জহুরুল আলম, সদর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কাজী আকতারুজ্জামান জুয়েল, পৌর বিএনপির সভাপতি মাহবুব উর রহমান প্রমুখ।

বক্তারা বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি জানিয়ে দেশব্যাপী আওয়ামী লীগের সন্ত্রাস ও নৈরাজ্যের প্রতিবাদ জানান।

 



সাতদিনের সেরা