kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১১ আগস্ট ২০২২ । ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯ । ১২ মহররম ১৪৪৪

গোলাপগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন

আ. লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী ১০ আগ্রহ নেই অন্য দলগুলোর

♦ মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন আগামী ১৭ মে
♦ ১৯ মে মনোনয়ন বাছাই
♦ প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ২৬ মে

সিলেট অফিস   

১৪ মে, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাডভোকেট ইকবাল আহমদ চৌধুরীর মৃত্যুতে শূন্য হওয়া সিলেটের গোলাপগঞ্জ উপজেলা পরিষদের উপনির্বাচন আগামী ১৫ জুন। নির্বাচনের সময় এগিয়ে আসার সঙ্গে সঙ্গে বাড়ছে সম্ভাব্য প্রার্থীদের তৎপরতা। নির্বাচন নিয়ে অন্য দলগুলোর আগ্রহ বা তৎপরতা এখনো চোখে না পড়লেও ক্ষমতাসীন দলের সম্ভাব্য প্রার্থীরা করছেন তুমুল দৌড়ঝাঁপ। আওয়ামী লীগের প্রার্থী হতে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নেমেছেন দলের ১০ সম্ভাব্য প্রার্থী।

বিজ্ঞাপন

তাঁদের মধ্যে রয়েছেন একজন নারী প্রার্থীও। তফসিল অনুযায়ী, মনোনয়ন জমা দেওয়ার শেষ দিন আগামী ১৭ মে। ১৯ মে মনোনয়ন বাছাই এবং প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ২৬ মে।

গোলাপগঞ্জের প্রভাবশালী আওয়ামী লীগ নেতা ইকবাল আহমদ চৌধুরী গত ২৯ জানুয়ারি বার্ধক্যজনিত কারণে মৃত্যুবরণ করলে চেয়ারম্যানের পদ শূন্য হয়। এরপর ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পান মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাজিরা বেগম শীলা। শূন্য পদে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা হলে নৌকার প্রার্থিতা নিয়ে দৌড়ঝাঁপ শুরু হয়। নৌকার মনোনয়ন পেতে দলের ১০ জন সম্ভাব্য প্রার্থী হলেন বর্তমান ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান নাজিরা বেগম শীলা, জেলা আওয়ামী লীগের নির্বাহী কমিটির সদস্য মঞ্জুর শাফি চৌধুরী এলিম, সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন ইসলাম কামাল, উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি লুত্ফুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক রফিক আহমদ, সৈয়দ মিসবাহ উদ্দিন, শাহিদুর রহমান চৌধুরী জাবেদ, আব্দুল ওহাব জোয়ারদার, আকবর আলী ফখর, ফরহাদ আহমদ। এর বাইরে নির্বাচনে শুধু স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন প্রবাসী নেতা সফিক উদ্দিন।  

গোলাপগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সভাপতি নোমান উদ্দিন মুরাদ বলেন, ‘নির্বাচনী সংস্কৃতিতে এখন স্বচ্ছতা নেই। তাই কেউ নির্বাচনে আগ্রহী হচ্ছে না। ’

সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শফিকুর রহমান চৌধুরী বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, ‘প্রার্থীদের তালিকা আমরা ঢাকায় পাঠিয়েছি। মনোনয়ন বোর্ড চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে। ’



সাতদিনের সেরা