kalerkantho

শনিবার । ১৩ আগস্ট ২০২২ । ২৯ শ্রাবণ ১৪২৯ । ১৪ মহররম ১৪৪৪  

রাজশাহীতে কমছে ফসলি জমি

রাতে কৃষিজমিতে চলে পুকুর খনন

♦ মাটি বহনকারী ট্রাক্টরের চাকায় নষ্ট হচ্ছে সড়ক
♦ প্রশাসনকে ম্যানেজ করেই কাটা হচ্ছে পুকুর

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী   

২৭ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রাতে কৃষিজমিতে চলে পুকুর খনন

চরঘাটের শ্রীখণ্ডী পূর্বপাড়ায় কৃষিজমিতে কাটা হচ্ছে পুকুর। ছবি : কালের কণ্ঠ

রাজশাহীতে প্রশাসনকে ম্যানেজ করে রাতের আঁধারে কৃষিজমিতে চলছে একের পর এক পুকুর খনন। এতে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে হাজার হাজার একর ফসলি জমি। খনন করে পাওয়া মাটি বিক্রি করা হচ্ছে আশপাশের ইটভাটায়। এই মাটি পরিবহনের সময় ট্রাক্টরের চাকায় নষ্ট হচ্ছে রাস্তাঘাট।

বিজ্ঞাপন

এলাকায় একের পর এক পুকুর খননের কারণে ফসলের মাঠে সৃষ্টি হচ্ছে জলাবদ্ধতা। এতে কমছে ফসল উৎপাদনও।

জেলার দুর্গাপুর, পুঠিয়া, চারঘাট, বাগমারা, বাঘা, পবা, মোহনপুরজুড়ে চলছে পুকুর খননের মহোৎসব। উচ্চ আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী, কৃষিজমির শ্রেণি পরিবর্তন করা যাবে না, কিন্তু এই নির্দেশনা উপেক্ষা করেই কৃষিজমি পরিণত করা হচ্ছে পুকুরে। ফলে কৃষিজমি হারাতে হচ্ছে ব্যাপকহারে। এতে করে কৃষির ওপর চাপও বাড়ছে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, রাজশাহীর দুর্গাপুরের কয়ামাজমপুর বিলে গত এক বছরে শতাধিক পুকুর কাটা হয়েছে। মাঝে কিছুদিন পুকুর কাটা বন্ধ ছিল। চলতি শীতেই আবার বিলের বিভিন্ন স্থানে পুকুর কাটা শুরু হয়েছে। তবে পুকুর কাটার অপরাধে তিনজনকে গ্রেপ্তারের পর জরিমানা আদায় করা হয়েছে। এর মধ্যে আলিয়াবাদ গ্রামের বাসিন্দা ও পানানাগর ইউনিয়নের সাবেক ইউপি সদস্য নূরুল ইসলামও রয়েছেন।

পবার গোবিন্দপুর বিলেও একই অবস্থা। এই বিলে গত মঙ্গলবার রাতে দামকুড়া থানার পুলিশ অভিযান চালিয়ে হাবিবুর রহমান নামের একজনকে গ্রেপ্তারের পর ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করা হয়। পরে হাবিবুরকে দুই লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। এ ছাড়া পুকুর না কাটার মুচলেকা নেওয়া হয়।



সাতদিনের সেরা