kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৮ জুন ২০২২ । ১৪ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৭ জিলকদ ১৪৪৩

বগুড়ায় ছাত্রদলের অনশনে হামলার অভিযোগ

♦ শাবিপ্রবি ভিসির পদত্যাগের দাবিতে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে জেলা ছাত্রদল এই কর্মসূচির আয়োজন করে
♦ ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা লাঠিসোঁটা নিয়ে মারধর করেন

নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া   

২৬ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বগুড়ায় গতকাল মঙ্গলবার ছাত্রদলের অনশন কর্মসূচিতে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। লাঠিসোঁটা নিয়ে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা তাদের ধাওয়া দেয়। এ সময় ছাত্রদলের অনেকে বিএনপির কার্যালয়ে, কেউ কেউ সদর পুলিশ ফাঁড়িতে আশ্রয় নেয়। হামলাকারীরা ফাঁড়িতে ঢুকে তাদের মারধর করে।

বিজ্ঞাপন

তবে জেলা ছাত্রলীগের দাবি, ছাত্রদলের কিছু নেতাকর্মী কর্মসূচি চলাকালে পাশেই বিদ্যুৎ অফিসের সামনে ছাত্রলীগ নেতাদের ওপর হামলা চালায়। এ ঘটনায় দুই পক্ষে ধাওয়াধাওয়ি হয়।

জানা গেছে, সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (শাবিপ্রবি) ভিসির পদত্যাগের দাবিতে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে জেলা ছাত্রদল শহরের শহীদ খোকন পার্কে সকাল ৯টা থেকে অনশন কর্মসূচি শুওু করে।

ছাত্রদল নেতাদের অভিযোগ, দুপুর সোয়া ১টার দিকে ছাত্রলীগের একদল নেতাকর্মী লাঠিসোঁটা নিয়ে পার্কে ঢুকে অনশনরত নেতাকর্মীদের ওপর হামলা চালান। তাঁদের ধাওয়ায় ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা নবাববাড়ী সড়কে বিএনপির কার্যালয়ে অবস্থান নেন। কিছু নেতাকর্মী সদর পুলিশ ফাঁড়িতে আশ্রয় নিলে হামলাকারীরা সেখানে ঢুকে পুলিশের সামনেই তাঁদের বেধড়ক মারধর করে। অর্ধশতাধিক ছাত্রলীগ নেতাকর্মী লাঠিসোঁটা নিয়ে বিএনপি কার্যালয়ের সামনে গিয়ে ব্যানার-ফেস্টুন ছিঁড়ে ফেলেন।

ছাত্রদলের অভিযোগ, লাঠিসোঁটা হাতে ছাত্রলীগকর্মীদের হামলার সময় পুলিশ থাকলেও তারা কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। ঘটনার সময় পুলিশকে নীরব দেখে আশপাশের সড়কের পথচারীদের ভয়ে দৌড়াদৌড়ি করতে দেখা যায়।

জেলা ছাত্রদলের সভাপতি আবু হাসান রিগ্যান অভিযোগ করেন, ‘শান্তিপূর্ণ অনশন কর্মসূচি চলাকালে দুপুর সোয়া ১টায় অতর্কিতে ছাত্রলীগ আমাদের ওপর হামলা চালায়। ’

জেলা ছাত্রলীগের সদ্যোবিদায়ী সভাপতি নাইমুর রাজ্জাক তিতাস দাবি করেন, ‘খোকন পার্কের পাশে আমাদের কয়েকজন নেতাকর্মীর ওপর ছাত্রদল অতর্কিতে হামলা চালায়। এ সময় আমরা সাতমাথায় ছিলাম। ঘটনা শুনে আমরা সেখানে ছুটে যাই। এ সময় কিছু ছাত্রদলের নেতা কোমরে রাখা অস্ত্র দেখিয়ে ভয় দেখান। ’

বগুড়া সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ বলেন, তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে দুই পক্ষে মারামারি হয়েছে। পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে। পুলিশের সামনে লাঠিসোঁটা নিয়ে ছাত্রলীগের কর্মীদেও ওপর হামলা ও মহড়ার তথ্য সঠিক নয় বলে দাবি করেন।



সাতদিনের সেরা