kalerkantho

শুক্রবার ।  ২৭ মে ২০২২ । ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ২৫ শাওয়াল ১৪৪

মিতু হত্যা

মোশাররফ হোসেনের মামলায় পিবিআইয়ের চূড়ান্ত প্রতিবেদন

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

২৬ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মোশাররফ হোসেনের মামলায় পিবিআইয়ের চূড়ান্ত প্রতিবেদন

মিতু

মাহমুদা খানম মিতু হত্যা মামলায় তাঁর বাবা মোশাররফ হোসেনের করা মামলায় গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দিয়েছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। পাশপাশি এই মামলায় প্রাপ্ত সাক্ষ্য-প্রমাণাদি হত্যার ঘটনায় মিতুর স্বামী সাবেক পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারের মামলার নথিতে সংযুক্ত করার আবেদন জানানো হয়েছে।

এদিকে বাবুল আক্তারের জামিন আবেদন নাকচ করেছেন আদালত। দুপুরে জামিন আবেদনের ওপর শুনানির শেষে চট্টগ্রাম মহানগর দায়রা জজ শেখ আশফাকুর রহমান এ আদেশ দেন।

বিজ্ঞাপন

পিবিআইয়ের চট্টগ্রাম মেট্রো অঞ্চলের বিশেষ পুলিশ সুপার নাঈমা সোলতান কালের কণ্ঠকে বলেন, মোশাররফ হোসেনের করা মামলাটির চূড়ান্ত প্রতিবেদন আদালতে দাখিল করা হয়েছে। সেই সঙ্গে দ্বিতীয় মামলায় প্রাপ্ত সাক্ষ্য-প্রমাণাদি প্রথম হত্যা মামলার নথিতে সংযুক্ত করার আবেদন জানানো হয়েছে আদালতে। এর মাধ্যমে দুই মামলায় প্রাপ্ত সাক্ষ্য-প্রমাণাদি একীভূত হয়ে একটি মামলা চলমান থাকবে।

২০১৬ সালের ৫ জুন সকালে ছেলেকে স্কুলবাসে তুলে দিয়ে যাওয়ার সময় দুর্বৃত্তদের গুলি ও ছুরিকাঘাতে মারা যান মিতু। এই ঘটনায় বাবুল আক্তার বাদী হয়ে পাঁচলাইশ থানায় অজ্ঞাতপরিচয় আসামিদের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা করেন। সেই মামলার দীর্ঘ তদন্তের পর গত ১২ মে হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে বাবুল আক্তারের সম্পৃক্ততা পাওয়া গেছে উল্লেখ করে আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করে পিবিআই। ওই দিনই পাঁচলাইশ থানায় আরেকটি হত্যা মামলা করেন মিতুর বাবা মোশাররফ। মামলার দিনই গ্রেপ্তার হন বাবুল। এরপর থেকে তিনি কারাগারে। কারাগারে থাকার সময়ই তিনি নিজের মামলার তদন্ত প্রতিবেদনের ওপর নারাজি দেন। পাশাপাশি অন্য সংস্থাকে দিয়ে মামলাটির অধিকতর তদন্তের আবেদন জানান। শুনানির পর চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম মেহনাজ রহমান আবেদনটি নাকচ করেন। আবার পিবিআইয়ের দাখিল করা চূড়ান্ত প্রতিবেদনটি গ্রহণ না করে পিবিআইকে অধিকতর তদন্তের নির্দেশনা দেন।



সাতদিনের সেরা