kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৮ জুন ২০২২ । ১৪ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৭ জিলকদ ১৪৪৩

জিডি করেও বাঁচতে পারলেন না সাক্ষী

একজনের পা কেটে ফেলা মামলার সাক্ষী ছিলেন পীর আলী

কালীগঞ্জ (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি   

২৫ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



জিডি করেও বাঁচতে পারলেন না সাক্ষী

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে পীর আলী (৩৩) নামে এক ওয়ার্ড যুবলীগ নেতার গলায় রশি পেঁচানো মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল সোমবার সকাল ৭টার দিকে তাঁর মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

পীর আলী উপজেলার কাষ্টভাঙ্গা ইউনিয়নের নলভাঙ্গা গ্রামের সামছুল হকের ছেলে। তিনি ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ছিলেন।

বিজ্ঞাপন

সম্প্রতি অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে তিনি ওই ওয়ার্ডে সদস্য পদে নির্বাচনে অংশ নেন এবং পরাজিত হন। এ ছাড়া স্থানীয় একটি বাঁওড়ের নাইট গার্ড হিসেবে কাজ করতেন পীর আলী।

স্থানীয় লোকজন জানায়, গত রবিবার রাত ৮টার দিকে বাড়ি থেকে বের হন পীর আলী। এরপর আর ফেরেননি। গতকাল সকালে পথচারীরা বাড়ির পাশের নলভাঙ্গা খালের ধারে তাঁর মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেয়।

তারা আরো জানায়, ২০১৬ সালে নলভাঙ্গা গ্রামে মেয়েকে উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় শাহিনুর রহমান নামের একজনের পা কেটে ফেলে স্থানীয় সন্ত্রাসীরা। এরপর বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের পর আদালত স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে মামলা করেন। সেই মামলায় হাইকোর্ট থেকে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে আসামিদের আত্মসমর্পণের নির্দেশ দেওয়া হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে আসামিরা আত্মসমর্পণ করেন। সে সময় থেকে পরবর্তী ছয় মাস শাহিনুরের বাড়িতে পুলিশি নিরাপত্তা ছিল। ওই মামলার ১ নম্বর সাক্ষী ছিলেন পীর আলী।

জানা যায়, আসামিরা জেল থেকে বেরিয়ে এসে পীর আলীকে নানাভাবে হুমকি-ধমকি দিতে থাকেন। এ কারণে গত বছরের ৪ ডিসেম্বর পীর আলী জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে কালীগঞ্জ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছিলেন। এলাকাবাসীর ধারণা, ওই ঘটনার জেরে তাঁকে হত্যা করা হতে পারে।

কালীগঞ্জ বারোবাজার পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ মকলেচুর রহমান জানান, লাশ একটি গাছের নিচে পড়ে ছিল। তাঁর গলায় রশি পেঁচানো ছিল এবং রশিটি একটি ভাঙা ডালের সঙ্গে জড়ানো ছিল। তবে গায়ে তেমন কোনো আঘাতের চিহ্ন নেই। তাই এটি হত্যা, নাকি আত্মহত্যা, তা নিশ্চিতে ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ ঝিনাইদহ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

কালীগঞ্জ থানার ওসি মতলেবুর রহমান বলেন, ‘খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে যাই। এটি হত্যা, না আত্মহত্যা, তা ময়নাতদন্তের পর জানা যাবে। ’



সাতদিনের সেরা