kalerkantho

সোমবার ।  ১৬ মে ২০২২ । ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৪ শাওয়াল ১৪৪৩  

সংসদে বিল উত্থাপন

পরিবর্তন আসছে জেলা পরিষদের সদস্যসংখ্যায়

মেয়াদ শেষ হলে জেলা পরিষদের কার্যক্রম পরিচালনায় প্রশাসক নিয়োগের বিধান থাকছে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৪ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



জেলা পরিষদে সদস্যসংখ্যা পরিবর্তনের প্রস্তাব করে জাতীয় সংসদে ‘জেলা পরিষদ (সংশোধন) আইন-২০২২’ উত্থাপন করা হয়েছে। প্রস্তাবিত আইনে জেলার অন্তর্গত উপজেলার সমানসংখ্যক সদস্য ও এক-তৃতীয়াংশ সংরক্ষিত সদস্য নিয়ে পরিষদ গঠনের বিধান যুক্ত করা হয়েছে। এ ছাড়া মেয়াদ শেষ হলে জেলা পরিষদের কার্যক্রম পরিচালনায় প্রশাসক নিয়োগের বিধানও রাখা হয়েছে।

গতকাল রবিবার স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অধিবেশনে বিলটি উত্থাপন করেন স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম।

বিজ্ঞাপন

পরে বিলটি অধিকতর পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে পাঠানো হয়। কমিটিকে সাত দিনের মধ্যে সংসদে প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য বলা হয়েছে।

বিদ্যমান আইনে শুধু নতুন জেলা পরিষদ গঠনের ক্ষেত্রে প্রশাসক নিয়োগের বিধান থাকলেও চলমান কোনো পরিষদের মেয়াদ শেষ হওয়ার পর প্রশাসক নিয়োগের কোনো বিধান নেই। প্রস্তাবিত আইনে জেলা পরিষদের মেয়াদ শেষ হলে সরকার কর্তৃক প্রশাসক নিয়োগের বিধান যুক্ত করা হয়েছে। বিদ্যমান আইনের ৮২ নম্বর ধারা সংশোধনের প্রস্তাব করা হয়েছে। এতে কোনো জেলা পরিষদের মেয়াদ উত্তীর্ণ হলে এবং পরবর্তী পরিষদ গঠন না হওয়া পর্যন্ত পরিষদের কার্যক্রম সম্পাদনের জন্য সরকার একজন উপযুক্ত ব্যক্তিকে বা প্রজাতন্ত্রের কর্মে নিযুক্ত কোনো কর্মকর্তাকে প্রশাসক নিয়োগ করতে পারবে। প্রশাসকের মেয়াদ ও অব্যাহতি সরকার কর্তৃক নির্ধারিত হবে বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

বিদ্যমান আইন অনুযায়ী, প্রত্যেক জেলায় একজন চেয়ারম্যান, ১৫ জন সদস্য ও পাঁচজন সংরিক্ষত মহিলা সদস্য অর্থাৎ মোট ২১ সদস্যের পরিষদ রয়েছে। প্রস্তাবিত সংশোধনে জেলার প্রত্যেক উপজেলায় (জেলার মোট উপজেলার সমানসংখ্যক) একজন করে সদস্য এবং চেয়ারম্যানসহ সদস্যদের মোট সংখ্যার এক-তৃতীয়াংশ (নিকটবর্তী পূর্ণসংখ্যা) নারী সদস্য নিয়ে জেলা পরিষদ গঠনের কথা বলা হয়েছে।

বিলে নতুন ৩৩(২-ক) উপধারা যুক্ত করে জেলার অন্তর্গত উপজেলা পরিষদগুলোর চেয়ারম্যান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, পৌরসভার মেয়র এবং প্রযোজ্য ক্ষেত্রে সিটি করপোরেশনের মেয়রের প্রতিনিধি জেলা পরিষদের সভায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন বলে বলা হয়েছে। তবে তাঁদের ভোটাধিকার থাকবে না বলে উল্লেখ করা হয়েছে।



সাতদিনের সেরা