kalerkantho

শনিবার । ১৩ আগস্ট ২০২২ । ২৯ শ্রাবণ ১৪২৯ । ১৪ মহররম ১৪৪৪  

এক পরিবারের তিনজনই প্রতিবন্ধী

কুলাউড়া (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি   

২২ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



এক পরিবারের তিনজনই প্রতিবন্ধী

মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার বরমচাল চা-বাগানের মাহাতো সম্প্রদায়ের এক পরিবারের তিন প্রতিবন্ধী। ছবি : কালের কণ্ঠ

গবাদি পশুসহ একটি জীর্ণ ঘরের ভেতর একই পরিবারের চার প্রতিবন্ধী সদস্যের মানবেতর জীবনযাপন যেন আধুনিক যুগের ক্রীতদাসের চিত্র। কখনো খেয়ে, কখনো না খেয়ে প্রতিবন্ধী এই পরিবারটি চালিয়ে যাচ্ছে তাদের জীবনসংগ্রাম। হৃদয়বিদারক এই ঘটনা মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার বরমচাল চা-বাগানের মাহাতো সম্প্রদায়ের এক পরিবারের।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, কুলাউড়া উপজেলার বরমচাল চা-বাগানের বাসিন্দা দিনমজুর মোহনলাল কুর্মী (৪৯) ও জাসন্তী কুর্মী (৪৪) দম্পতির দুই সন্তান মিলে চার সদস্যের পরিবারের তিনজনই প্রতিবন্ধী।

বিজ্ঞাপন

পরিবারপ্রধান মোহনলাল বাক ও শারীরিক প্রতিবন্ধী। তাঁদের সংসারে জন্ম নেওয়া ছেলে অর্জুন কুর্মী (১৫) ও মেয়ে মালতী কুর্মী (১৩) দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী। পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম জাসন্তী কুর্মীও সুচিকিৎসার অভাবে দৃষ্টিশক্তি হারাতে বসেছেন।

সরেজমিনে বরমচাল বাগানে একটি শ্রমিক বস্তিতে জাসন্তী কুর্মীর ঘরে গিয়ে দেখা যায়, একটি ঘরে নিজেরা থাকেন এবং অন্য ঘরে নিজেদের একমাত্র সম্বল বাছুরসহ দুটি গরু রাখা হয়েছে। সন্তানরা যখন বাড়িতে আসে তখন গরুর ঘরে স্যাঁতসেঁতে পরিবেশে থাকতে হয় এই দম্পতিকে।

দুই সন্তান অর্জুন কুর্মী ও মালতী কুর্মী অন্য জায়গায় দৃষ্টিপ্রতিবন্ধীদের বিদ্যালয়ে ভর্তি রয়েছে। সরকারি সুযোগ-সুবিধা হিসেবে শুধু ওই পরিবারের এক সদস্যকে প্রতিবন্ধী ভাতা দেওয়া হয়। সেই ৭৫০ টাকা দিয়ে কোনোমতে চলছে তাদের দুঃখের জীবন।

জাসন্তী বলেন, ‘বাচ্চাদের বাবা কাজ করতে পারেন না। পাঁচ বছর আগে তিনি পঙ্গু হয়ে যান। পরিবারের হাল ধরার জন্য আমি পার্শ্ববর্তী আমছড়ি পুঞ্জিতে গৃহপরিচারিকার কাজ করতাম। কখনো খেয়ে, কখনো না খেয়ে উপোস থাকতে হয়। ১০ দিন ধরে আমি নিজেও দেখতে পারি না। চোখে সমস্যা হয়েছে। ডাক্তার বলেছে, অপারেশন করালে ভালো হবে। ’

মোহনলাল বলেন, ‘আমাদের পরিবার থেকে আমার ছেলে প্রতি মাসে ৭৫০ টাকা সরকারি ভাতা পায়, যা দিয়ে চারজনের সংসার চালানো খুবই দুষ্কর। ’

স্থানীয় ইউপি সদস্য চন্দন কুর্মী বলেন, ‘পরিবারটি খুবই দরিদ্র। পরিবারের এক সদস্যকে প্রতিবন্ধী ভাতার ব্যবস্থা করে দেওয়া হয়েছে। ’



সাতদিনের সেরা