kalerkantho

রবিবার । ২৬ জুন ২০২২ । ১২ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৫ জিলকদ ১৪৪৩

দাওয়াই

অসংক্রামক রোগ প্রতিরোধে ব্যায়াম

২১ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অসংক্রামক রোগ প্রতিরোধে ব্যায়াম

ব্যায়াম বা শরীরচর্চা চিকিৎসাপদ্ধতির একটি অংশ। নানা রোগ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণে ব্যায়ামের যথেষ্ট ভূমিকা রয়েছে। যে রোগ একজনের দেহ থেকে আরেকজনের দেহে সংক্রমিত হতে পারে না সেসব অসংক্রামক রোগ যেমন : ডায়াবেটিস, হৃদরোগ, ক্যান্সার, স্ট্রোক, কিডনির রোগ, হরমোনজনিত রোগ, আঘাতজনিত রোগ ইত্যাদি প্রতিরোধে ব্যায়াম বেশ ভূমিকা রাখতে পারে। গবেষণা বলছে, বিশ্বে প্রতি তিনটি মৃত্যুর একটি হচ্ছে এসব অসংক্রামক ব্যাধির কারণে।

বিজ্ঞাপন

এটি নির্মূল করা সম্ভব নয়, তবে প্রতিরোধ করা অনেকটাই সম্ভব।

 

ব্যায়ামের গুরুত্ব

ব্যায়াম শরীরের নানা উপকার করে। দেহের বিপাকীয় কাজকে বাড়ায়, হরমোনের ভারসাম্য বজায় রাখতে সাহায্য করে। রক্ত পরিশোধনে সাহায্য করে, দেহকে সর্বোচ্চ অক্সিজেন ব্যবহার করতে সাহায্য করে এবং বিভিন্ন অসংক্রামক ব্যাধির লক্ষণগুলো কমাতে ভূমিকা রাখে।

অসংক্রামক রোগ প্রতিরোধের প্রথম ধাপে নিয়ন্ত্রিত জীবনব্যবস্থা নিশ্চিত করা জরুরি এবং তা ব্যায়ামের সঙ্গে সম্পর্কিত। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এই লক্ষ্য পূরণে action plan on physical activity 2018-2030-এর প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করে More active people for a healthier world প্রকল্প ঘোষণা করেছে। এর আওতায় থাকছে কিভাবে বিশ্বের মানুষকে আরো বেশি সচল ও কর্মক্ষম করা যায় এবং আরো সুস্থ পৃথিবী গড়ে তোলা যায়। এখানে তারা শারীরিক পরিশ্রমকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়েছে।

 

পরামর্শ

প্রতিটি রোগের জন্য রয়েছে আলাদা ব্যায়াম ও যোগাসন, যা ওই নির্দিষ্ট রোগ নিয়ন্ত্রণে দারুণ ভূমিকা রাখে। তাই যেকোনো অসংক্রামক ব্যাধিতে আক্রান্ত হলে ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী ওষুধের পাশাপাশি সঠিক পথ্য বা খাদ্যতালিকা করে নিন। পাশাপাশি শিখে নিন ওসব রোগের যথাযথ ব্যায়াম। প্রয়োজনে ফিটনেস এক্সপার্টের পরামর্শ নিন। তাহলে শক্তভাবে রোগ প্রতিরোধ করা সম্ভব।

 

পরামর্শ দিয়েছেন

লাবীবা তাসনীম আনিকা

পুষ্টিবিদ, ইন্সপিরন ফিটনেস ও ডায়েট কনসালটেন্সি সেন্টার, ধানমণ্ডি, ঢাকা।



সাতদিনের সেরা