kalerkantho

বৃহস্পতিবার ।  ১৯ মে ২০২২ । ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৭ শাওয়াল ১৪৪৩  

জীবন বীমার পরিচালকের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

নিয়োগ বাণিজ্যের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২১ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



জীবন বীমা করপোরেশনের উচ্চমান সহকারী, অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক ও অফিস সহায়ক পদে নিয়োগ বাণিজ্যের অভিযোগে প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক জহুরুল হক (অতিরিক্ত সচিব) ও সহকারী জেনারেল ম্যানেজার (প্রশাসন) মোহাম্মদ মাহবুবুল আলমের বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

গতকাল বৃহস্পতিবার দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয়-১-এর সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ নুর আলম সিদ্দিকী মামলাটি করেন।

দুদক সচিব মাহবুব হোসেন বলেন, মামলায় জীবন বীমা করপোরেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) মো. জহুরুল হক ও সহকারী জেনারেল ম্যানেজার (প্রশাসন) মোহাম্মদ মাহবুবুল আলমকে আসামি করা হয়েছে। তদন্তে অন্য কারো সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেলে তাঁদেরও মামলায় আসামি করা হবে।

বিজ্ঞাপন

এজাহারে বলা হয়, জীবন বীমার উচ্চমান সহকারী, অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক এবং অফিস সহায়ক পদে নিয়োগ পরীক্ষার এমসিকিউ প্রশ্নপত্রের সঙ্গে সঠিক উত্তরও ছাপানো হয়। পরবর্তী সময়ে পছন্দের চাকরিপ্রার্থীদের এগুলো সরবরাহ করা হয়। এ ঘটনায় দণ্ডবিধির ৪০৯/১০৯ ধারা ও ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারায় মামলা করা হয়।

জানা যায়, গত বছরের ৩ ও ৪ সেপ্টেম্বর জীবন বীমা করপোরেশনের উচ্চমান সহকারী, অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক ও অফিস সহায়ক পদে ৫১২ জন নিয়োগের জন্য এমসিকিউ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। পরীক্ষার পরপরই জীবন বীমার ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. জহুরুল হকের বিরুদ্ধে এসব পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁস করে নিয়োগ বাণিজ্যের অভিযোগ আসে দুদকে।

অভিযোগে বলা হয়, এই নিয়োগ পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে অন্তত ৪০ কোটি টাকার বাণিজ্য হয়েছে। পরীক্ষার প্রশ্ন তৈরি করতে একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে করপোরেশনের চুক্তি হলেও  ব্যবস্থাপনা পরিচালক পছন্দের লোকদের দিয়ে একটি কমিটি করে প্রশ্ন তৈরি করেন। এরপর এই প্রশ্ন ৫১২ জন পরীক্ষার্থীর কাছে বিলি করেন। এ জন্য তাদের প্রত্যেকের কাছ থেকে আট লাখ টাকা করে অগ্রিম নেন তিনি। গত ১৩ সেপ্টেম্বর দুদকের সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ নেয়ামুল আহসান গাজীর নেতৃত্বে একটি দল জীবন বীমা করপোরেশন অফিসে অভিযান চালায়।



সাতদিনের সেরা