kalerkantho

বৃহস্পতিবার ।  ২৬ মে ২০২২ । ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ২৪ শাওয়াল ১৪৪

টেন্ডার বাক্স ভেঙে দরপত্র নিয়ে গেলেন জেলা পরিষদ সদস্য

চাঁদপুর প্রতিনিধি   

১৯ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



টেন্ডার বাক্স ভেঙে দরপত্র নিয়ে গেলেন জেলা পরিষদ সদস্য

চাঁদপুরের মতলব দক্ষিণ জেলা পরিষদের সদস্য ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আল আমিন ফরাজির নেতৃত্বে সরকারের উন্নয়নমূলক কাজের টেন্ডার বাক্স ভেঙে দরপত্র ছিনিয়ে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত সোমবার দুপুরে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কক্ষে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আল আমিনকে প্রধান আসামি করে ছয়জনের বিরুদ্ধে থানায় দ্রুত বিচার আইনে একটি মামলা হয়েছে। পুলিশ মাইন উদ্দিন দেওয়ান নামের একজনকে আটক করেছে।

বিজ্ঞাপন

মতলব দক্ষিণ থানার ওসি মোহাম্মদ মহিউদ্দিন মিয়া জানিয়েছেন, আল আমিনসহ অন্যদের গ্রেপ্তারে গোয়েন্দা পুলিশসহ থানা পুলিশের একাধিক দল বিভিন্ন স্থানে অভিযানে নেমেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সোমবার দুপুর পৌনে ২টার দিকে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কক্ষে থাকা টেন্ডার বাক্স ভেঙে দরপত্র ছিনিয়ে নিয়ে যায় আল আমিনের নেতৃত্বে তাঁর দলবল।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির আওতায় ২০২১-২০২২ অর্থবছরে গ্রামীণ মাটির রাস্তাসমূহ টেকসইকরণের লক্ষ্যে হেরিংবোন বন্ড (এইচবিবি) প্রকল্পের আওতাধীন পাঁচটি  প্যাকেজের দরপত্র জমা দেওয়ার শেষ সময় ছিল সোমবার দুপুর ১টা। ঠিকাদারদের সিডিউল জমা দেওয়ার পর প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) রবিউল ইসলাম টেন্ডার বাক্স সিলগালা করে চলে যান। এর পরই আল আমিন তাঁর দলবল নিয়ে ওই কক্ষে ঢুকে টেন্ডার বাক্স ভেঙে জমাকৃত সিডিউল ছিনিয়ে নিয়ে যান।

এ ব্যাপারে পিআইও রবিউল ইসলাম বলেন, নিয়ম অনুযায়ী দুপুর ১টার মধ্যে দরপত্র জমা নেওয়ার পর টেন্ডার বাক্সটি উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কক্ষে সিলগালা করে রাখা হয়। পরে তিনি নামাজ আদায় করতে যান। কিছুক্ষণ পর শুনতে পান টেন্ডার বাক্স ভেঙে জমা পড়া দরপত্র নিয়ে গেছে একদল দুর্বৃত্ত। তিনি ফিরে এসে বিষয়টি ইউএনওকে জানান এবং নিজেই বাদী হয়ে থানায় মামলা করেন।

সহকারী কমিশনার (ভূমি) সেটু কুমার জানান, ইউএনও অসুস্থ ছিলেন। খবরটি শুনতে পেয়ে তিনি বিষয়টি সেটু কুমারকে দেখতে বলেন। তিনি গিয়ে দেখেন টেন্ডার বাক্স ভাঙা এবং জমাকৃত দরপত্র নিয়ে যাওয়া হয়েছে। সেটু কুমরা আরো জানান, ইউএনও অফিসের সিসি ক্যামেরায় কয়েকজন যুবককে অফিসে ঢুকে টেন্ডার বাক্স ভেঙে দরপত্র (শিডিউল) নিয়ে যেতে দেখা গেছে।

থানার মহিউদ্দিন মিয়া জানান, এ ঘটনায় রাতেই আল আমিনকে প্রধান আসামি করে ছয়জনের বিরুদ্ধে দ্রুত বিচার আইনে মামলা হয়েছে। এর মধ্যে একজনকে আটক করা হয়েছে। আল আমিনসহ অন্যদের গ্রেপ্তারে রাতেই গোয়েন্দা পুলিশসহ থানা পুলিশের একাধিক দল অভিযানে নেমেছে। এ ছাড়া ঘটনাস্থলের সিসি ক্যামেরার ফুটেজ উদ্ধার এবং টেন্ডার বাক্স জব্দ করা হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, আল আমিন ফরাজি গত কয়েক বছরে সন্ত্রাসী কার্যকলাপ, ভূমি দখল এবং টেন্ডারবাজি করে অর্ধশত কোটি টাকার মালিক হয়েছেন। মতলব দক্ষিণ উপজেলায় তাঁর একটা ক্যাডার বাহিনী আছে। এদের ভয়ে আতঙ্কে থাকে এলাকার সাধারণ মানুষজন। বিগত ২০১৮ সালের জাতীয় নির্বাচনের পর কিছুদিন আত্মগোপনে থাকার পর সম্প্রতি ফের বেপরোয়া হয়ে উঠেছে আল আমিন ও তাঁর দল।



সাতদিনের সেরা