kalerkantho

শনিবার । ২৫ জুন ২০২২ । ১১ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৪ জিলকদ ১৪৪৩

বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির কথা বলে জালিয়াতি হোতা গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৮ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে আগ্রহীদের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে যোগাযোগ করে তারা। বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তীচ্ছু শিক্ষার্থীদের নিয়ে ‘বিআরইউআর চান্স ১০০% করে দিব’ নামের একটি হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপও খোলে। সেখানে মাত্র ২০ হাজার টাকার বিনিময়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির প্রস্তাব দেয় তারা। এমনই একটি সংঘবদ্ধ চক্রের সন্ধান পেয়েছে অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) সাইবার পুলিশ সেন্টার।

বিজ্ঞাপন

নড়াইলের লোহাগড়া থেকে মেহেদী হাসান নামের একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সিআইডি বলছে, মেহেদী চক্রটির প্রধান।

গতকাল সোমবার সিআইডির এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, চক্রটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির বার্তা পাঠায়। এতে বলা হয়, ‘যাঁরা বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্স পাননি, তাঁদের চান্স পাইয়ে দেব। এতে খরচ হবে ২০ হাজার টাকা। এ জন্য অগ্রিম পেমেন্ট করতে হবে ৮৫০ টাকা। ’ আরেক বার্তায় বলা হয়, যাঁরা ফলাফল পরিবর্তন করার জন্য ৮৫০ টাকা দিয়েছেন,

তাঁদের ফলাফল পরিবর্তন করা হয়েছে। বিকেল ৫টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে ফলাফল পাবেন। বাকি টাকা ভর্তির পর দেবেন। ’

এভাবে বিজ্ঞাপন দিয়ে রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথম বর্ষে ভর্তীচ্ছু শিক্ষার্থীদের সঙ্গে প্রতারণা করা হয়। চক্রটি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়সহ বেশ কয়েকটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি জালিয়াতির সঙ্গেও যুক্ত বলে দাবি করে সিআইডি। চক্রটি

বিভিন্ন মুঠোফোন নম্বর ও হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ব্যবহার করে ২০১৭ সাল থেকে প্রতারণা করে আসছিল।

গ্রেপ্তার মেহেদীর কাছ থেকে অর্থ লেনদেনে ব্যবহৃত বিকাশ সিমসহ ১০টি সিম, তিনটি মুঠোফোন ও একটি ল্যাপটপ উদ্ধার করা হয়। তাঁর সহযোগীদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে বলে জানায় সিআইডি।



সাতদিনের সেরা